Berger Paint

ঢাকা, বুধবার   ০১ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ১৭ ১৪২৬

ব্রেকিং:
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরো দুই জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫১ জনে দাঁড়িয়েছে।
Corona Virus Hotline
সর্বশেষ:
এ বছর বাংলা নববর্ষের অনুষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের ব্যাপক সংক্রমণ রোধে চলমান ছুটি সীমিত আকারে বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। লকডাউন মুক্ত ঘোষণা করেছে কৌচ-বড়ইচড়া গ্রাম চীনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে আমেরিকা লকডাউনের মেয়াদ বাড়ালো ইতালি করোনায় মৃত ৩৭ হাজার ছাড়িয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্ত দেড় লাখের বেশি, মৃত্যু ৩৮০ জনের আজ ৬৪ জেলা কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে শিক্ষকের অশ্লীল ম্যাসেজ, এলাকায় চাঞ্চল্য

রংপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

পঠিত: ১০৪০
ছবি - সংগৃহীত

ছবি - সংগৃহীত

রংপুরের বদরগঞ্জের কুতুবপুর অরুন্নেছা স্কুল এন্ড  কলেজের শিক্ষক সেলিম শাহ। ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে একই স্কুলের আরো ৫/৬ জন ছাত্রীকে জন একই ধরনের নোংরা ম্যাসেজ দেওয়ার অভিযোগ আছে।  ঘটনায় তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে শিক্ষার্থী এবং এলাকাবাসীরা।

জানা যায়  অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে মোবাইলে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের ম্যাসেজিং এর গুরুতর অভিযোগ উঠেছে রংপুরের বদরগঞ্জের কুতুবপুর অরুন্নেছা স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক সেলিমের বিরুদ্ধে । এই ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করলেও ওসির বিরুদ্ধে মামলা রেকর্ড না করার অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভোগী পরিবার। ঘটনা ধামাচাপা দিতে তিনদিনের চিকিৎসা ছুটি নিয়ে গা ঢাকা দিয়েছেন সেলিম শাহ। যদিও পুলিশ সুপার বলছেন মামলা নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এদিকে শিক্ষক সেলিম ষড়যন্ত্রের শিকার বলে দাবি করলেন তার মা। আর স্ত্রী বললেন, এ ধরনের মেসেজ দেয়া ঠিক হয়নি। সাত দিনের ছুটিতে আছেন তার স্বামী।

এদিকে ঘটনা সামাল দিতে অত্যন্ত কৌশলে সভাপতি এবং স্কুলের প্রধান শিক্ষককে ম্যানেজ করে একটি চিকিৎসা ছুটি নিয়েছেন সেলিম। যদিও প্রধান শিক্ষক এটির দায় শুধু সভাপতির ওপরই চাপাচ্ছেন।

এদিকে থানায় মামলা না নেয়ার অভিযোগের বিষয়টি গভীরভাবে খতিয়ে দেখছেন রংপুর পুলিশ সুপার। তিনি বললেন বিষয়টি জানার পর দ্রুতগতিতে মামলাটি নেয়ার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এলাকাবাসীর দাবি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এধরনের শিক্ষকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা না নেয়া হলে পুরো শিক্ষা ব্যবস্থায় এর প্রভাব পড়বে।

এই বিভাগের আরো খবর