ঢাকা, শনিবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রাহায়ণ ২০ ১৪২৮

ব্রেকিং:
দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন কারণে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় `জাওয়াদ` শুরু হচ্ছে বঙ্গভ্যাক্সের প্রথম ট্রায়াল বাংলাদেশকে বিনামূল্যে করোনার আরও টিকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র রোনালদোর রেকর্ডের ম্যাচে জয় পেল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

আশুগঞ্জে ফসলি জমিতে গলাকাটা লাশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৩ নভেম্বর ২০২১  

প্রতীকি ছবি

প্রতীকি ছবি

 

নৈশ প্রহরী রাসেল মিয়া। এসএমজি নামীয় একটি ইট ভাটায় কাজ করতো। ভাটার এক শ্রমিকের সাথে ক’দিন আগে ছিলো বিরোধ। আচমকাই নিখোঁজ হন রাসেল। এক দিনের মাথায় ফসলি জমিতে মিললো তার গলাকাটা মরদেহ। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলা এলাকার।

 

 

আজ মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে পুলিশ উপজেলার তালশহর ইউনিয়নের কামাউড়া এলাকার ফসলি জমি থেকে নৈশ প্রহরীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত রাসেল মিয়া (৩৫) একই উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের সোহাগপুর গ্রামের দুলাল মিয়ার পুত্র। চার সন্তানের জনক রাসেল মিয়া উপজেলার তালশহর ইউনিয়নে তালশহর গ্রামে অবস্থিত এসএমজি নামীয় ইটভাটায় নৈশ প্রহরী হিসেবে কর্মরত ছিলো।

 

 

নিহতের পরিবার, এলাকাবাসী এবং পুলিশ স‚ত্রে জানা গেছে, গত সোমবার দুপুরে স্ত্রীর সঙ্গে শেষ কথা হয় রাসেলের। এরপর থেকেই তাকে আর কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে স্থানীয়রা জমিতে কাজ করতে গেলে রাসেলের মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে দুপুর ১২টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে।

 

 

রাসেলের স্ত্রী নাহিদা বেগম জানান, আগেরদিন দুপুরে রাসেলের সাথে আমার ফোনে কথা হয়। এরপর থেকেই আর কোথাও তার খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিলো না। সকালে ফসলি জমিতে মরদেহ দেখতে পায় স্থানীয়রা। তবে কয়েকদিন আগে ইটভাটার এক শ্রমিকের সাথে আমার স্বামীর বিরোধ ছিলো বলে আমাকে বলেছে।

 

 

আশুগঞ্জ থানার পরিদর্শক (ওসি) মো. আজাদ রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ‘নিহতের গলায় ও পিঠে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
ও/এফ

 

এই বিভাগের আরো খবর