Berger Paint

ঢাকা, বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১৩ ১৪২৭

ব্রেকিং:
নির্মাতা দেবাশীষ বিশ্বাস কারাগারে আজারবাইজানের হামলায় কারাবাখের প্রতিরক্ষামন্ত্রী আহত কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ায় বিষাক্ত মদপানে প্রাণ গেল ৩ যুবকের বদলির কারণে উন্নয়ন যেন বাধাগ্রস্ত না হয় :প্রধানমন্ত্রী ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণার ওয়েবসাইট হ্যাকড
সর্বশেষ:
তুর্কি-ইসরাইলি পতাকায় আগুন আর্মেনীয়দের হাজী সেলিমের দখলে থাকা অগ্রণী ব্যাংকের জমি উদ্ধার ইরফান সেলিম ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে আরও ৪ মামলা

ইউরোপে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি উদ্বেগের বিষয়: ডব্লিউএইচও

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬ অক্টোবর ২০২০  

পঠিত: ৮৯
ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

 

জাতিসংঘের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) আঞ্চলিক প্রধান ডা. হানস হেনরি পি ক্লোগ বলেছেন, করোনা ভাইরাস এখন ইউরোপের মৃত্যুর পঞ্চম প্রধান কারণ হয়ে দাড়িয়েছে।

 

তিনি বলেন, চলতি সপ্তাহে ইউরোপজুড়ে প্রায় সাত লাখ মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, যা মার্চ মাসে মহামারি শুরু হওয়ার পর সর্বোচ্চ সাপ্তাহিক সংক্রমণের ঘটনা। বিভিন্ন দেশের সরকারের বিধিনিষেধগুলো কঠোর করা খুবই প্রয়োজন। কারণ তাৎপর্যপূর্ণভাবে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী এবং এ রোগে মৃতের সংখ্যা বাড়ছে।

 

ইউরোপের মহামারি পরিস্থিতি এখন ব্যাপক উদ্বেগের বিষয়। প্রতিদিনকার আক্রান্তের সংখ্যা ও হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা বাড়েছে, করোনা মহামারী এখন ইউরাপে মৃত্যুর পঞ্চম প্রধান কারণ।

 

ডা. হানস বলেন, মাত্র ১০ দিনেই সামগ্রিকভাবে ইউরোপে কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৬০ লাখ থেকে লাফ দিয়ে ৭০ লাখে পৌঁছে গেছে। গত সপ্তাহে ছুটির দিন শনি ও রোববার দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা প্রথমবারের মতো এক লাখ ২০ হাজার ছাড়িয়েছে।

 

মহামারি সংক্রান্ত নির্ভরযোগ্য মডেলগুলো ইঙ্গিত দিচ্ছে যে দীর্ঘ দিন ধরে বিধিনিষেধ শিথিলকরণের ফলে এপ্রিলের তুলনায় মৃত্যুর হার চার থেকে পাঁচগুণ বেশি হতে পারে, যা ২০২১ সালের জানুয়ারির মধ্যে সামনে উঠে আসবে।

 

তিনি বলেন, সঠিকভাবে মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং সামাজিক জমায়েতে ওপর কঠোর নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারির মধ্যে এ অঞ্চলজুড়ে অন্তত দুই লাখ ৮১ হাজার মানুষের জীবন বাঁচানো যেতে পারে।

 

নেদারল্যান্ডস গতকাল একদিনে নতুন করে সাত হাজার ৮৩৩ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। তার আগের ২৪ ঘণ্টায় এ সংখ্যাটি ছিল সাত হাজার ২৯৬ জন। বেলজিয়ামে ৫ থেকে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত দৈনিক গড়ে পাঁচ হাজার ৪২১ রোগী শনাক্ত করেছে, যা আগের সপ্তাহের তুলনায় ১০১ শতাংশ বেশি।  ইউরোপের মহামারির মূলকেন্দ্র ছিল ইতালি। সেখানে গতকাল রেকর্ড আট হাজার ৮০৪ জনের সংক্রমণ হয়। আগের দিন এটি ছিল সাত হাজার ৩৩২ জন। আয়ারল্যান্ডে এক হাজার ৯৫ নতুন রোগী শনাক্ত হওয়ার তথ্য গত বুধবার জানানো হয়েছে।

 

 

এই বিভাগের আরো খবর