ঢাকা, সোমবার   ২৯ নভেম্বর ২০২১,   অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৮

ব্রেকিং:
দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন কারণে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচার হবে আর্জেন্টিনায় ৪১তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা আজ থেকে শুরু ইরাকে আইএসের ভয়াবহ হামলা, নিহত ৫ চুল কেটে দেওয়া রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই শিক্ষক স্বপদে বহাল সাবেক কর্মকর্তাদের আফগানিস্তানে ফিরতে বাধা নেই: তালেবান

ইভ্যালির কাছে মার্চেন্টদের পাওনা ২০৬ কোটি টাকা

প্রতিদিনের চিত্র ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬ সেপ্টেম্বর ২০২১  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 

গ্রাহকদের পর এবার পণ্য সরবরাহকারীদের কাছে কত টাকা দেনা আছে তা জানাল ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, তাদের কাছে পণ্য সরবরাহকারীরা প্রায় ২০৬ কোটি টাকা পাবেন। ২ সেপ্টেম্বর বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে এ হিসাব দিয়েছে ইভ্যালি।

 

এর আগে ২৬ আগস্ট দেয়া হিসাবে ইভ্যালি জানিয়েছিল, গ্রাহকেরা তাদের কাছে ৩১১ কোটি টাকা পাবেন। গ্রাহকের পাওনার সমপরিমাণ টাকা পণ্য কেনার জন্য অগ্রিম মূল্য বাবদ পরিশোধ করা হয়েছে।

 

ইভ্যালির হিসাব অনুযায়ী, গত ১৫ জুলাই পর্যন্ত মার্চেন্টদের কাছে তাদের দেনার পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২০৫ কোটি ৮৬ লাখ ৮৪ হাজার ৩৮৩ টাকা। মূলত এসব মার্চেন্টের কাছ থেকে পণ্য কিনে গ্রাহকদের কাছে বিক্রি করে ইভ্যালি।

 

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হিসাব বিবরণীতে বলা হয়েছে, যেকোনো ব্যবসায়ে ক্রেডিট সুবিধা একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া এবং তা যুগ যুগ ধরে প্রতিটি ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে বিদ্যমান। ইভ্যালির সঙ্গে সব সরবরাহকারীর ক্রেডিট–সংক্রান্ত চুক্তি বিদ্যমান আছে। তাই যে অর্থ বর্তমানে দেনা হিসেবে আছে, তা অতি স্বাভাবিক ও গ্রহণযোগ্য পরিমাণ।

 

এর আগে ১৩ আগস্ট ইভ্যালিকে চিঠি দিয়ে ১৫ জুলাই পর্যন্ত কোম্পানির সম্পদ ও দায়ের বিবরণ, গ্রাহক ও মার্চেন্টদের কাছে দেনার বিবরণ জানতে চায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। কিন্তু ইভ্যালি সময় চায়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সেই আবেদনে সাড়া দেয়নি। শেষ পর্যন্ত বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বেঁধে দেয়া সময় মেনে হিসাব দিতে বাধ্য হয় ইভ্যালি।

এই বিভাগের আরো খবর