ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৬ মে ২০২২,   জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
ডাক্তারদের ফাঁকিবাজি রুখতে হাজিরা খাতায় দিনে তিনবার সই করার নির্দেশ! ১০০০ জনবল নিয়োগ দেবে ওয়ালটন ঢাকায় আসছে ফিফা বিশ্বকাপ ট্রফি সরকারকে ৬ দিনের আল্টিমেটাম ইমরান খানের ফাইনালের পথে বেঙ্গালুরু, লখনৌর বিদায় সেনেগালে হাসপাতালে আগুন; ১১ নবজাতকের মৃত্যু বিশ্বব্যাপী মাঙ্কিপক্স আক্রান্ত ২০০ ছাড়িয়েছে ঢাবিতে ফের ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষ

ঈদের টানা ছুটিতে খাগড়াছড়িতে পর্যটকের উপচে পড়া ভীড়

দহেন বিকাশ ত্রিপুরা, খাগড়াছড়ি

প্রকাশিত: ৭ মে ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 

টানা ছুটিতে খাগড়াছড়িতে পর্যাপ্ত পর্যটকের আগমন ঘটায় খালি নেই অধিকাংশ হোটেল, মোটেল ও রিসোর্টের কক্ষ। অনেক পর্যটক এসব হোটেল-মোটেলের সব কক্ষ অগ্রিম নিয়ে রেখেছেন ভ্রমণপ্রত্যাশীরা। ঈদের প্রথম দিন থেকে আজ পর্যন্ত বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রে ভিড় করেছে পর্যটকরা। অতিথি পেয়ে খুশি পর্যটন সংশ্লিষ্টরা। ভ্রমণপিপাসুদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রেখেছে হোটেল মোটেল ব্যবসায়ীরা। চাইছেন করোনার ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে। পর্যটন কেন্দ্রে নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে পুলিশ। সার্বিক নিরাপত্তায় তৎপর তারা। পর্যটকদের ভ্রমণে সব ধরনের সহযোগিতা করছে জেলা পুলিশ।

 

শনিবারে পর্যটন ও হোটেল ব্যবসা সংশ্লিষ্টরা এ তথ্য জানিয়েছেন।

 

স্থানীয়রা জানান, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের লীলাভূমি পর্যটন নগরী খাগড়াছড়িতে সারাবছরই প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসেন হাজার হাজার পর্যটক। তবে সরকারি বিশেষ ছুটির দিনে পর্যটকদের সংখ্যা বাড়ে কয়েকগুণ।

 

বৃহস্পতিবার ও শনিবার দুপুর পর্যন্ত সরেজমিনে দেখা যায়, পর্যটকের আগমনের ফলে বিকাল দিকে খাগড়াছড়ির আলুটিলার পুনর্বাসন এলাকা থেকে তৈরাং তৈকালাই (রিছাং ঝরনা) পর্যন্ত দীর্ঘ যানজট দেখা যায়। আলুটিলা রহস্যময় সুড়ঙ্গ, পার্বত্য জেলা পরিষদের হর্টিকালচার পার্ক, ঝুলন্ত ব্রিজ, ভাইবোনছড়ায় মায়াবিনী লেকসহ প্রায় সব পর্যটন স্পটে ছিল পর্যটকের উপচেপড়া ভিড়।

 

অতিরিক্ত পর্যটক আগমনের ফলে আলুটিলা পর্যটন ও পুনর্বাসন এলাকায় যানজটে কিছুটা ভোগান্তিতে পড়েন পর্যটকরা। এছাড়া প্রায় সব হোটেল-মোটেল ও রিসোর্টে ছিল পর্যটকদের সরব উপস্থিতি।

 

রাজশাহী থেকে আসা মোঃ সেলিম ও আব্দুর রাজ্জাক নামে দুই বন্ধু জানান, অপরূপ সৌন্দর্য্যের প্রাকৃতিক দৃশ্য আমরা না আসলে মিস করতাম। ঈদের টানা ছুটিতে আমরা চেয়েছি পরিবার পরিজনকে নিয়ে একটু চিল করা। সাজেকেও গিয়েছি, অনেক ভালো লাগছে। এখানকার পাহাড়ি জনগোষ্ঠিদের আপ্যায়ন দেখে মুগ্ধ। আগামী বার আবার আসবো এমনই মন্তব্য করেছেন তারা।

 

জেলা প্রশাসনের আলুটিলা পর্যটন কেন্দ্রে টিকিট কাউন্টারের দায়িত্বে থাকা কোকনাথ ত্রিপুরা জানান, গত মঙ্গলবার (৩মে) সকাল থেকে শনিবার (৬মে) দুপুর পর্যন্ত সাড়ে ১০হাজারের বেশি টিকেট বিক্রি হয়েছে। তারমধ্যে বাহিরের লোক বেশি। এবারের বেশি পর্যটকের সমাগম ঘটেছে আলুটিলায়।

 

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের হর্টিকালচার পার্ক (ঝুলন্ত ব্রীজ) টিকিট কাউন্টারের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা জানান, গত মঙ্গলবার (৩মে) সকাল থেকে শনিবার (৬মে) দুপুর পর্যন্ত প্রায় ৮হাজারের বেশি টিকেট বিক্রি হয়েছে। গত করোনার কারণে দর্শনার্থীদের দেখা না মিললেও এবারের বেশি পর্যটকের সমাগম হয়েছে।

 

এ বিষয়ে খাগড়াছড়ি হোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এস অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরা জানান, খাগড়াছড়ির ভ্রমণপ্রত্যাশীরা ঈদের ছুটি কাটানোর জন্য জেলা সদরের সব হোটেল মোটেল রিসোর্টের অধিকাংশ কক্ষ আগাম বুকিং দিয়ে রেখেছেন। খাগড়াছড়িতে পযাপ্ত পরিমাণ পর্যটকের ধারণক্ষমতা থাকায় নতুন ভ্রমণপ্রত্যাশীদের আবাসন সংকট দেখা দেওয়ার তেমন সম্ভাবনা নেই।

 

খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার মো. আব্দুল আজিজ জানান, টানা ছুটিতে খাগড়াছড়ি ও সাজেকে ঘুরতে আসা পর্যটকদের নিরাপত্তায় টুরিস্ট পুলিশ ও জেলা পুলিশ সজাগ রয়েছে। এছাড়া আগত পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ট্যুরিস্ট পুলিশ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর