Berger Paint

ঢাকা, বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১৩ ১৪২৭

ব্রেকিং:
নির্মাতা দেবাশীষ বিশ্বাস কারাগারে আজারবাইজানের হামলায় কারাবাখের প্রতিরক্ষামন্ত্রী আহত কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ায় বিষাক্ত মদপানে প্রাণ গেল ৩ যুবকের বদলির কারণে উন্নয়ন যেন বাধাগ্রস্ত না হয় :প্রধানমন্ত্রী ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণার ওয়েবসাইট হ্যাকড
সর্বশেষ:
তুর্কি-ইসরাইলি পতাকায় আগুন আর্মেনীয়দের হাজী সেলিমের দখলে থাকা অগ্রণী ব্যাংকের জমি উদ্ধার ইরফান সেলিম ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে আরও ৪ মামলা

এবার সারাদেশে ৩০ হাজার ২২৫ মন্ডপে দুর্গাপূজা

প্রতিদিনের চিত্র ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬ অক্টোবর ২০২০  

পঠিত: ১১৪
ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

 

সারাদেশে ৩০ হাজার ২২৫টি মন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে এবার। গতবছর ৩১ হাজার ৩৯৮টি মন্ডপে হয়েছিল এই পুজা। গতবছরের তুলনায় এবার ১ হাজার ১৭৩টি মন্ডপে পূজা কম হচ্ছে।

 

এছাড়াও ঢাকা বিভাগে এবার ৭ হাজার ১৪টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গতবছর অনুষ্ঠিত হয়েছিল ৭ হাজার ২৭১টি মন্দিরে। গতবছরের তুলনায় চট্রগ্রাম বিভাগে এবার ৫৫০টি মন্ডপে পূজা কম হচ্ছে। খুলনা বিভাগে ৪ হাজার ৬৮৯টি মন্ডপে, সিলেট বিভাগে ২ হাজার ৬৪৬টি মন্ডপে, ময়মনসিংহ বিভাগে ১ হাজার ৫৮৪টি মন্ডপে,বরিশাল বিভাগে ১ হাজার ৭০১টি মন্ডপে, রংপুর বিভাগে ৫ হাজার ২৫০টি মন্ডপে এবং রাজশাহী বিভাগে ৩ হাজার ৪৩৫টি মন্ডপে এবার দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

মহামারী করোনা আতঙ্কের মধ্যেই আগামী ২১ অক্টোবর বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে বাঙালি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা।

 

এর আগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর মহালয়া অনুষ্ঠিত হয়। পুরাণমতে, এদিন দেবী দুর্গার আবির্ভাব ঘটে। মহালয়ার ৬ দিন পর পূজা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও এবার তা অনুষ্ঠিত হয়নি। আশ্বিণ মাস মল (মলিন) মাস হওয়ার কারণে এবার দুর্গাপুজা শুরু হচ্ছে প্রায় একমাস পর আগামী ২১ অক্টোবর বুধবার থেকে। পঞ্জিকা মতে, ২০২০ সালে মা দুর্গার আগমন হচ্ছে দোলায়। দোলায় চড়ে বাপের বাড়ির উদ্দেশ্যে স্বামীর ঘর থেকে রওনা দেবেন তিনি। দোলায় আগমনের অর্থ মড়ক। ফলে পুজোর বা তার পরবর্তী সময়েও মহামারীর পরিস্থিতি বজায় থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এবার হাতিতে চড়ে মা বাপের ঘর ছেড়ে পাড়ি দেবেন স্বর্গে। গজে চড়ে গমনের ফল শুভ হয়। তবে এই বছরের পুজো অন্যান্য বছরের মত নয়। করোনা আতঙ্কের মধ্যেই এবার দেবীপক্ষের সূচণা হয়। আর মহামারীর দুর্যোগ মাথায় নিয়েই এবার হচ্ছে মাতৃ বন্দনা।

 

নির্দেশনায় মন্দির প্রাঙ্গণে নারী-পুরুষের প্রবেশ ও বের হওয়ার পথ পৃথক ও নির্দিষ্ট থাকার কথা বলা হয়েছে। এছাড়াও পূজামন্ডপে আগত ব্যক্তিবর্গ নির্দিষ্ট দূরত্ব (কমপক্ষে দুই হাত) বজায় রেখে লাইন করে সারিবদ্ধভাবে প্রবেশ করবেন এবং প্রণাম শেষে বের হয়ে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে। সম্ভব হলে পুরো পথ পরিক্রমা গোল চিহ্ন দিয়ে নির্দিষ্ট করে দেয়ার কথাও নির্দেশনায় বলা হয় । পূজামন্ডপে আগত সবার মাস্ক পরিধান করা বাধ্যতামূলক। মাস্ক পরিধান ছাড়া কাউকে পূজামন্ডপে প্রবেশ করতে দেয়া যাবে না। এছাড়াও মন্দিরের প্রবেশপথে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা সাবান দিয়ে হাত ধোয়া এবং তাপমাত্রা পরিমাপের জন্য থার্মাল স্ক্যানারের ব্যবস্থা নিশ্চিত করার কথা বলা হয়েছে।