ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রাহায়ণ ৫ ১৪২৬

ব্রেকিং:
৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ শাহাদাত কাল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ট্রাক-কাভার্ডভ্যান শ্রমিকদের কর্মবিরতি
সর্বশেষ:
শেষ টেস্ট খেলতে কলকাতার পথে টাইগাররা, মূল চ্যালেঞ্জ বোলারদের মনে করেন পেসার আল-আমিন হোসেন পেঁয়াজের পর চালের দাম বাড়ানোর ষড়যন্ত্র চলছে : নাসিম পদ্মা সেতুতে বসেছে ১৬তম স্প্যান আজ কার্গো বিমানে পেঁয়াজের প্রথম চালান আসছে বিটিআরসির কলসেন্টারে ৭ হাজার ৯০৮ অভিযোগ প্রধানমন্ত্রী আজ রাতে দেশে ফিরছেন তিনটি বিলে সম্মতি প্রদান করেছেন রাষ্ট্রপতি

এস আলম গ্রুপ আনছে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ

প্রকাশিত: ১ নভেম্বর ২০১৯  

পঠিত: ৩১
ছবি - সংগৃহীত

ছবি - সংগৃহীত

দেশে চলমান পেঁয়াজের সংকট কাটাতে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানীর উদ্যোগ নিয়েছে দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্প প্রতিষ্ঠান এস.আলম গ্রুপ। আগামী সপ্তাহে মিসর থেকে এর প্রথম চালান চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে বলে জানা যায়।

জানা যায়, খুচরা বাজারে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রী হচ্ছে ১২০টাকা থেকে ১৩০ টাকায়। এ অবস্থায় বাজার স্থিতিশীল রাখতে আমাদানী করা এসব পেঁয়াজ বাজরে ৬০টাকায় বিক্রী করা যাবে বলেও জানান আমাদানীকারকরা।

ভারতের বৈদেশিক বাণিজ্যবিষয়ক দপ্তর গত ২৯ সেপ্টেম্বর পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দেয়। নিজেদের বাজার সামাল দিতে এই পদক্ষেপ নেয় দেশটি। এরপরই বাংলাদেশসহ এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোয় পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা দেখা দেয়।

চট্টগ্রামের পাইকারী ব্যবসা কেন্দ্র খাতুনগঞ্জ ঘুরে দেখা গেছে অধিকাংশ আড়ত আর পাইকারী ব্যবসা কেন্দ্র খালি পড়ে আছে। হাতে গোনা কয়েকটি মোকামে পেঁয়াজ থাকলেও সেসব পেঁয়াজ পাইকারি বাজারে বিক্রি হচ্ছে ১০৫ টাকা থেকে ১১০ টাকায়। আর খুচরা বাজারে বিক্রী হচ্ছে ১২০টাকা থেকে ১৩০টাকায়।

এস আলম গ্রুপের বাণিজ্যিক বিভাগের প্রধান মহাব্যবস্থাপক আখতার হাসান বলেন, ‘সাধারণ মানুষ যাতে সহনীয় দামে পেঁয়াজ কিনতে পারে সে জন্য পেঁয়াজ আনা হচ্ছে। এখানে ব্যবসার কোনো উদ্দেশ্য নেই। আগামী সপ্তাহে পেঁয়াজের বড় চালানটি আসছে। এই চালান আসার পর দেশে পেঁয়াজের সংকট থাকবে না। দামও কমে আসবে।’

এই বিভাগের আরো খবর