ঢাকা, শনিবার   ২২ জানুয়ারি ২০২২,   মাঘ ৯ ১৪২৮

ব্রেকিং:
দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন কারণে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪৮ প্রাক্তন ফুটবলার ও কোচ সুভাষ ভৌমিক মারা গেছেন খালেদা জিয়ার অবস্থা স্থিতিশীল ঢাকায় শাবিপ্রবির শিক্ষক প্রতিনিধি দল মা হলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ, পাঠদান চলবে অনলাইনে করোনার ইতিহাসে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড

করোনা থেকে বাঁচতে যা যা করবেন

প্রতিদিনের চিত্র বিডি ডেস্ক

প্রকাশিত: ২ জানুয়ারি ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 

সারাবিশ্ব জুড়ে করোনা নিয়ে শুরু হয়েছে আতঙ্ক। আমাদের দেশেও করোনা পরিস্থিতি নতুন করে ভাবিয়ে তুলছে। করোনার টিকা নেওয়া থাকলেও তারাই বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। তাই সুস্থ থাকতে চাই জরুরি সতর্কতা।

 

ভিড় এড়িয়ে চলুন
করোনা থেকে বাঁচতে অনেক ভিড় হয় এমন জায়গা এড়িয়ে চলুন।  কারণ উপসর্গহীন করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকেই। আক্রান্ত ব্যক্তি নিজেও হয়তো জানেন না তিনি করোনা আক্রান্ত। এজন্য দরকার না পড়লে বাইরে যাওয়া থেকে বিরত থাকুন। আর গেলেও লোকজনের সংস্পর্শ থেকে দূরত্ব বজায় রেখে চলুন।

 

জ্বর হলে গুরুত্ব দিন
ঋতু পরিবর্তনের এই সময় ঠান্ডা লেগে জ্বর আসছে ভেবে অনেকেই গুরুত্ব দিচ্ছেন না। এমনটি না করে জ্বর হলে লক্ষ রাখুন পাশাপাশি কাশি,গলা ব্যথা, ক্লান্তি, অরুচি,বমি বমিভাব মত অন্য কোনও উপসর্গ আছে কিনা। যদি থাকে, তা হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

 

বাইরের জামাকাপড়ে বেশিক্ষণ নয়
বাইরে থেকে ফিরে প্রথমেই দ্রুত জামাকাপড় বদলে ফেলুন।  পরবর্তীতে পরার আগে অবশ্যই ওই জামা ধুয়ে তারপর পরবেন।

 

মাস্ক পরুন
আজকাল রাস্তাঘাটে মাস্কহীন মানুষের সংখ্যা বেশি দেখা যায়। সুস্থ থাকতে মাস্ক ব্যবহার করুন। আজকাল অনেক হাল ফ্যাশানে মাস্ক দেখা যায়। তবে থ্রি লেয়ারের মাস্ক পরার চেষ্টা করুন।

 

স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন
রাস্তাঘাটে তো বটেই, এমনকি বাড়িতেও কিছুক্ষণ পর পর ব্যবহার করুন স্যানিটাইজার। বাড়িতে অতিথি এলেও তাকে স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে বলুন।

 

খাওয়ার আগে হাত ধুয়ে নিন
খেতে বসার আগে শুধু স্যানিটাইজার মেখে নিলে হবে না। হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে হাত ধুয়ে তার পর ব্যবহার করুন স্যানিটাইজার।

 

শিশু এবং বয়স্কদের ওপর বাড়তি নজর দিন:
পরিবারের ছোট এবং প্রবীণ কোনও সদস্য থাকলে তাদের ওপর বাড়তি নজর রাখুন। শীতকালে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এমনিতে কম থাকে। তাই এই দুই বয়সের মানুষের প্রতি ভালোমত নজর দিন।