Berger Paint

ঢাকা, বুধবার   ০৫ অক্টোবর ২০২২,   আশ্বিন ১৯ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
১৯ জেলায় ৬০ কিমি বেগে ঝড়ের পূর্বাভাস সমুদ্রপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার সময় ট্রলারডুবি, ৩০ রোহিঙ্গা উদ্ধার অপশক্তি সম্পর্কে সতর্ক থাকার আহ্বান ওবায়দুল কাদেরের ইমরান খানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা খারিজ জাপানের ওপর দিয়ে মিসাইল ছুড়ল উ. কোরিয়া সীমান্তে মিয়ানমারের ফের গোলাগুলিতে স্থানীয়রা আতঙ্কিত

কিশোরগঞ্জে হত্যা মামলায় ৪ জনের ফাঁসি, ৪ জনের যাবজ্জীবন

প্রতিদিনের চিত্র ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫ অক্টোবর ২০২০  

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

কিশোরগঞ্জের জেলার করিমগঞ্জে সাবেক সরকারি কর্মচারী আবদুর রহমান আমিনকে হত্যাকান্ডের মামলায় ৪ জনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। আরো ৪জন আসামীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। কারাদণ্ডসহ প্রত্যেক আসামীকে এক লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।

 

কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত দায়রা জজ আবদুর রহিম আজ সোমবার সকালে এ রায় ঘোষনা করেন। প্রথমে আসামীদের আদালতে আনা হয়। তারপর আসামীদের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করা হয়।

এই হত্যাকান্ডের ঘটনায় ফাঁসির আসামিরা হলেন- কাশেম, নজরুল, লিটন ও সাত্তার। আর যাবজ্জীবনপ্রাপ্তরা হলেন- খোকন, সিরাজ, কান্তু মিয়া ও সাহেদ।

 

মামলার বিবরণে বলা হয়েছে, কিশোরগঞ্জ জেলা গণপূর্ত বিভাগের সাবেক তদারক সহকারী আবদুর রহমান আমিন চাকরি থেকে অবসর নিয়ে করিমগঞ্জ উপজেলার নোয়াবাদ ইউনিয়নের শিংগুয়া গ্রামে তার শ্বশুরবাড়ির এলাকায় স্থায়ীভাবে বসবাস করতেন। একই গ্রামের মৃত আবদুল কাদিরের ছেলে কাশেম, সিরাজ ও নজরুলের সঙ্গে তার অনেক দিন থেকেই বিরোধ চলছিল।

 

২০০৬ সালের এপ্রিল মাসের ২৩ তারিখে খুব ভোরে আসামিরা আবদুল রহমানের বসতঘরে হামলা করেন। তারা তাকে কুপিয়ে এই হত্যাকান্ড ঘটান। হামলার সময় আবদুল রহমানকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে আহত হন তার স্ত্রী মোছা. নূরুন্নাহার। ঘরে থাকা টাকা, স্বর্ণালংকারসহ অন্যান্য জিনিসপত্র লুটপাত করে নিয়ে যায় হামলাকারী সন্ত্রাসীরা।

 

ঐদিন হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটার পর পরই নিহতের স্ত্রী নূরুন্নাহার বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখসহ আরও অজ্ঞাত ২/৩ জনকে আসামি করে করিমগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়।

 

এই বিভাগের আরো খবর