Berger Paint

ঢাকা, শনিবার   ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩,   মাঘ ২২ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
সৌদি আরবে এক বছরে ১৪৭ জনের মৃত্যুদণ্ড আ.লীগ জনগণকে দেওয়া ওয়াদা পূরণ করে : প্রধানমন্ত্রী বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজের খরচ বাড়ল দেড় লাখ মিয়ানমারে জরুরি অবস্থা আরও ছয় মাস বাড়ল আমি বাংলাদেশে বাবার কাছে থাকতে চাই: লায়লা রিনা

কুড়িগ্রাম ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নে আলুর বাম্পার ফলন, দাম নিয়ে শঙ্কা চাষিদের

এম এম আল মামুন, কুড়িগ্রাম

প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০২৩  

কুড়িগ্রাম ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নে আলুর বাম্পার ফলন। ছবি- প্রতিদিনেরচিত্র বিডি

কুড়িগ্রাম ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নে আলুর বাম্পার ফলন। ছবি- প্রতিদিনেরচিত্র বিডি

কুড়িগ্রামের বড়াই বাড়ি চর অঞ্চলে আলুর বাম্পার ফলন হয়েছে। অতীতের চেয়ে এবার আলুর উৎপাদন অনেক বেশি হলেও ন্যায্য মূল্য পাওয়া নিয়ে শঙ্কা করছেন চাষিরা চলতি মৌসুমে কুড়িগ্রাম জেলায় ৬৪৬২ হাজার হেক্টর জমিতে আলু চাষ করা হয়। এবার উৎপাদনে ফলন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়  ১৫৫০০০ টন।

 

আলু চাষিরা জানান, জমি থেকে আলু তুলতে শ্রমিকদের খরচ বহন হিমশিম খেতে হয়। এছাড়া জেলার বাইরের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পারায় স্থানীয় মধ্যস্বত্ব ভোগীদের কাছে আলু বিক্রয় করতে হয়। ফলে কৃষকের চেয়ে বেশি লাভবান হচ্ছেন মধ্যস্বত্ব ভোগী আলু ব্যবসায়ীরা।  

 

কুড়িগ্রাম জেলার ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের চর বড়াই বাড়ি নানকার গ্রামের আলু চাষি আলম জানান, আমি ১৭ একর জমিতে আলু চাষ করেছি আলুর গাছ ভালো হয়েছে। আশা করছি ফলন ভালো তবে বাজারের যে অবস্থা আলুর দর নিয়ে চিন্তায় আছি। আত্নীয় আলু চাষিরা জানান জমিতে আলু চাষ করেছি ভাল ফলনের আশা করছি, বর্তমান বাজার মূল্য মোতাবেক দর থাকলে খরচ ওঠে কিছু লাভ হতে পারে না হলে লোকশান হবে।

 

আলু চাষী আলম জানান, এবার ১৭ একর জমিতে আলু চাষ করেছি ফলন ভালো হলে বিঘা প্রতি ১২ থেকে ১৪ হাজার কেজি আলু পাবো তবে কীটনাশক সার তেলের দাম বাড়ায় এবার বিঘা প্রতি খরচ হয়েছে ৪০ হাজারেরও বেশি তবে এবার আলুর বাজার ভালো গেলে কিছু টাকা আয় হবে গত বছরে প্রতি কেজি আলু ১৬ টাকা ১৭ টাকা দরে বিক্রি করেছি এ বছরে ভালো দামে আলু বিক্রি করার আশা করছি

 

কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কৃষি উপপরিচালক বিপ্লব কুমার হিমন্ত বলেন, জেলার বিভিন্ন চর অঞ্চলে আলুর ফলন ভালো হয়েছে। কৃষকদের সফলতা কামনা করে তাদের কাঙ্ক্ষিত আশা পূরণ হবে বলে জানিয়েছেন ।

এই বিভাগের আরো খবর