ঢাকা, সোমবার   ২৬ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১১ ১৪২৮

ব্রেকিং:
১০ আগস্ট থেকে ওমরাহ’র সুযোগ পাচ্ছে বিদেশী মুসল্লিরা তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রী বরখাস্ত, পার্লামেন্ট স্থগিত
সর্বশেষ:
ইরানে পানির দাবিতে বিক্ষোভ, নিহত ৩ বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ও সংক্রমণ কমেছে

গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় প্রধান আসামিসহ আটক- ৪

মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, নোয়াখালী, প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৫ অক্টোবর ২০২০  

ছবি- প্রতিদিনের চিত্র

ছবি- প্রতিদিনের চিত্র

 

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে গৃহবধূকে নিজ ঘরে ধর্ষণ চেষ্টায় বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় প্রধান আসামি সহ ৪জনকে পৃথক পৃথক স্থানে অভিযান চালিয়ে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ ও র‌্যাব-১১ গ্রেফতার করে।

 

সোমবার (৫ অক্টোবর) সকালে মামলার প্রধান আসামি বাদলকে ঢাকা থেকে ও স্থানীয় দুর্ধর্ষ দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ারকে নারায়ণগঞ্জ থেকে আটক করে র‌্যাব-১১। আটককৃত, বাদল (২২) একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মধ্যম একলাশপুর গ্রামের মোহর আলী মুন্সি বাড়ির রহমত উল্যার ছেলে, দেলোয়ার একই গ্রামের কামাল উদ্দিন ব্যাপারী বাড়ির সাইদুল হকের ছেলে।

 

এ ঘটনায়, সোমবার দিনগত রাতে রাতে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে নির্যাতিতা গৃহবধূ (৩৫) বাদী হয়ে নয় জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত পুলিশ ও র‌্যাব তিন দফায় অভিযান চালিয়ে ৪ জনকে আটক করে।  

 

পুলিশের হাতে আটককৃতরা হলো- একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের জয়কৃঞ্চপুর গ্রামের খালপাড় এলাকার হারিদন ভূঁইয়া বাড়ির শেখ আহম্মদ দুলাল’র ছেলে রহীম ও একই গ্রামের মৃত আব্দুর রহীম’র ছেলে মো.রহমত উল্যাহ।
 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত মাসের (২ সেপ্টেম্বর) রাত ৯টার দিকে উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকার নূর ইসলাম মিয়ার বাড়িতে গৃহবধূ (৩৫) এর বসত ঘরে ঢুকে তার স্বামীকে  পাশের কক্ষে বেঁধে রেখে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে শ্লীলতাহানি করে স্থানীয় বাদল ও তার সংঘবদ্ধ বখাটে যুবক দল। ঐ সময় গৃহবধূ বাঁধা দিলে তারা তাকে বিবস্ত্র করে বেধড়ক মারধর করে মোবাইলে ভিডিও চিত্র ধারণ করে।

 

ওসি মো.হারুন উর রশীদ জানিয়েছেন, আসামিদের গ্রেফতারে জোর তৎপরতা চলছে। আটককৃত আসামিদের বিচারিক আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

 

উল্লেখ্য, রোববার (৪ অক্টোবর) দুপুরের দিকে ঘটনার ৩২দিন পর  গৃহবধূকে নির্যাতনের ঐ ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে প্রকাশ পেলে তা ভাইরাল হয়ে গেলে টনক নড়ে স্থানীয় প্রশাসনের। ঘটনার পর থেকে গত ৩২ দিন অভিযুক্ত স্থানীয় দেলোয়ার, বাদল, কালাম ও তাদের সহযোগীরা নির্যাতিতা গৃহবধূর পরিবারকে কিছু দিন অবরুদ্ধ করে রাখে। এবং নির্যাতিতার পুরো পরিবারকে বসত বাড়ি ছাড়তে বাধ্য সন্ত্রাসীরা। যার কারনে পুরো ঘটনা দীর্ঘদিন স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ প্রশাসনের অগোচরে থাকে।

এই বিভাগের আরো খবর