Berger Paint

ঢাকা, রোববার   ৩১ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

ব্রেকিং:
এসএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশ, পাসের হার ৮২.৮৭ শতাংশ লিবিয়ায় নিহত ২৬ বাংলাদেশির মরদেহ মিজদাহ শহরে দাফন আজ এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ
সর্বশেষ:
ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে বিচার চলবে ১৫ জুন পর্যন্ত আল-আকসা মসজিদের খতিবকে গ্রেফতার করলো ইসরাইল লকডাউন শিথিলে পরিস্থিতি আরো খারাপ হবে, অভিমত বিশেষজ্ঞদের চট্টগ্রামে আরও ২৭৯ জনের করোনা শনাক্ত দুই মাস পর খুলে দেওয়া হলো আল-আকসা মসজিদ

গৌরনদীতে আনোয়ারা ক্লিনিকের ভুয়া চিকিৎসায় মা ও শিশুর মৃত্যু

খোকন হাওলাদার, গৌরনদী (বরিশাল)

প্রকাশিত: ২২ মে ২০২০  

পঠিত: ৮৭
ছবি- প্রতিদিনের চিত্র

ছবি- প্রতিদিনের চিত্র

 

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার আওতাধীন আনোয়ারা ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ডাক্তার এমবিবিএস চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে বরিশালের গৌরনদী পৌর এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে একটি প্রাইভেট ক্লিনিক পরিচালনা করে আসা হেদায়েত উল্লাহ'র ভূল চিকিৎসায় মা ও শিশুর মৃত্যু।

এর আগে হেদায়েত পার্শ্ববর্তী বাবুগঞ্জ উপজেলার আগরপুর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ফার্মাসিস্ট হিসেবে কর্মরত আছেন। পাশাপাশি গৌরনদীতে আনোয়ারা ক্লিনিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিচালনা করে আসছেন।

উজিরপুর থেকে আসা আফরোজা আক্তার মুন্নি বেগম, স্বামী মোঃ উজ্জ্বল তালুকদার, গ্রাম সানের হাট , পোস্ট শোলক বাজার থানা উজিরপুর। নিহত আফরোজা আক্তার মুন্নি বেগমের পরিবারের পক্ষ থেকে তার স্বামী মোঃ উজ্জ্বল তালুকদার জানান, গতবুধবার রাত থেকে আমার স্ত্রীর প্রসব ব্যথার যন্ত্রনা হয়। তখন আমরা বৃহস্পতিবার (২১ মে) সকাল ১০টার দিকে গৌরনদী উপজেলার আনোয়ারা ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে আশি। তখন চিকিৎসক রত ডাক্তার মোঃ হেদায়েতুল্লাহ'র সাথে আমাদেরকে ভর্তী করিয়ে দেওয়া হয়।  

আমাদেরকে বরিশাল থেকে এমবিবিএস ডাক্তার আসার কথা বলে অপেক্ষা করতে বলাহয় পরে দুপুর দুইটার দিকে আমার স্ত্রীকে অপারেশন থিয়েটার রুমে নিয়ে যাওয়া হয়। তখন তিনি বরিশাল থেকে এমবিবিএস ডাক্তার না এনে একপর্যায়ে অজ্ঞানের ইনজেকশন তিনিই করেন।

দীর্ঘ সময়ের পর সে অপারেশন থিয়েটার থেকে বেরিয়ে আসেন তখন উজ্জ্বল তালুকদার তাকে জিজ্ঞাসা করেন আমার স্ত্রীর খবর কি ডাক্তার হেদায়েতুল্লাহ তার প্রশ্নের জবাবে বলেন আপনার স্ত্রীর অবস্থা ভালো না তার একটি ইনজেকশন লাগবে আমি ইনজেকশন  আনতে যাচ্ছি। ইনজেকশন আনার কথা বলে ডাক্তার হেদায়াতুল্লাহ ক্লিনিক থেকে পালিয়ে যান এবং সাথে থাকা ডি এম এফ অজয় কিছু খুন পর অপারেশন থিয়েটার রুম থেকে বেরিয়ে আসলে মৃত আফরোজা আক্তার মুন্নি বেগমের আত্মীয়-স্বজনরা তার কাছে জিজ্ঞাসা করেন তখন তিনি বলেন আফরোজা আক্তার মুন্নি বেগম আর বেঁচে নাই তখন স্থানীয় লোকজন দ্রুত গৌরনদী মডেল থানা পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। খবর পাওয়ার সাথে সাথে গৌরনদী মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত মোঃ মাহবুবুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স চৌকস এসআই মোঃ আসাদুজ্জামান খান, এ এস আই মোঃ হুমায়ুন কবিরসহ দ্রুত আনোয়ারা ক্লিনিক এন্ড ডায়গনিক সেন্টারে উপস্থিত হন তাৎক্ষণিক এই বিষয়টি গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আশোকাঠী হাসপাতালের টি এস আই মোঃ সাইদ হোসেন ও তার সহযোগী এমবিবিএস ডাক্তার মোঃ মাজেদুল হক কাওছারকে বিষয়টি অবহিত করা হয়।

ঘটনা তদন্তের জন্য টি এস আই ও ডাক্তার মাজেদুল হক আনোয়ারা ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে উপস্থিত হন তারা এসে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আফরোজা আক্তার মুন্নিকে ও তার গর্ভে থাকা শিশুকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।

গৌরনদী মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত মোঃ মাহবুবুর রহমান জানান, আমরা জিজ্ঞাসা করার জন্য অজয় সহ দুই জনকে থানায় নিয়ে গেলাম আপনারা থানায় এসে মামলা করেন আমরা মামলা নিব এবং আসামিকে দ্রুত গ্রেপ্তারের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই বিভাগের আরো খবর