Berger Paint

ঢাকা, সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২,   অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ আবারও পেছালো যে কোনো মূল্যে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হবে: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে শিশু আয়াত হত্যা : আসামি আবীর ফের রিমান্ডে ৫০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কেউ পাস করেনি এসএসসিতে পাসের হার ৮৭.৪৪ শতাংশ সাংহাইয়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, বিক্ষোভ

গৌরবের ১৮১ বছর পেরিয়ে ঢাকা কলেজ

মো. আকিব হোসাইন

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২২  

মো. আকিব হোসাইন, ছবি- প্রতিদিনেরচিত্র বিডি।

মো. আকিব হোসাইন, ছবি- প্রতিদিনেরচিত্র বিডি।

 

তিহাস, ঐতিহ্য ও গৌরবের ১৮১ বছর পেরিয়ে ১৮২তম বর্ষে পদার্পণ করেছে উপমহাদেশের সর্বপ্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢাকা কলেজ। ১৮৪১ সালের ২০শে নভেম্বর প্রতিষ্ঠিত এই বিদ্যাপীঠ আজও শিক্ষা দীক্ষায় বেশ সুনামের সাথে এগিয়ে চলছে। প্রতিষ্ঠার পর থেকে ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়েছে এই প্রতিষ্ঠানটি। তৎকালীন প্রতিষ্ঠিত ঢাকা কলেজ হয়ে উঠে সমগ্র পূর্ব বাংলার ইংরেজি শিক্ষার প্রাণকেন্দ্র। ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও হিন্দু কলেজের শিক্ষক জে. আয়ারল্যান্ড ছিলেন ঢাকা কলেজের প্রথম অধ্যক্ষ। ফলশ্রুতিতে দ্রুত বদলে যায় শিক্ষা কার্যক্রম। দেশ ও জাতির ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংকটে ও সংগ্রামে বার বার সফলতার পরিচয় দিয়েছে। ব্রিটিশ আমল থেকে শুরু করে পাক আমল ও স্বাধীনতা অর্জনের পরবর্তী সময়েও কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়েছে ঢাকা কলেজ।

 

১৯৩৯-৪৫ সালের মহাযুদ্ধে, ১৯৪১ সালের দোল দাঙ্গায়, ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে, ১৯৫৪ সালের প্রাদেশিক সরকারের নির্বাচনে, ১৯৬২ সালের শিক্ষা আন্দোলনে, ১৯৬৬ সালের ৬ দফা দাবি পূরণে, ১৯৬৯ সালের গণ-আন্দোলনে, ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত অর্থাৎ স্বাধীনতা অর্জনের ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে। স্বাধীনতা আন্দোলনে মাতৃভূমির জন্য যুদ্ধে অনেকে শহীদ হয়েছেন। ছাত্র শিক্ষক অনেকেই মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। পরবর্তী সময়ে ১৯৯০ সালের গণ-আন্দোলনেও ঢাকা কলেজের অবদান ছিল ব্যাপক।

 

অতীতে কলেজটি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও সর্বশেষ ২০১৭ সালে শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নের লক্ষ্যে দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত করা হয়। রাজধানীর নিউমার্কেটে অবস্থিত এ প্রতিষ্ঠানটি শিক্ষা, দীক্ষা, সংস্কৃতিতে বেশ এগিয়ে। বিখ্যাত দার্শনিক সক্রেটিসের উক্তি ‘নিজেকে জানো’ এই মূলনীতির ধারক ও বাহক হিসেবে পরিচয় দিচ্ছেন ঢাকা কলেজ। প্রায় ২৫ হাজার শিক্ষার্থীদের নিয়ে পাঠদান চলছে। বর্তমানে উচ্চ মাধ্যমিক, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি চালু রয়েছে। বিএ, বিবিএ, বিএসএস, এমএ, এমবিএ, এমএমএস এর অধীনে ২২ টি বিভাগে অধ্যায়ন করার সুযোগ রয়েছে। তাছাড়াও ৮টি হল, ঢাকা কলেজ কেন্দ্রীয় মসজিদ, ঢাকা কলেজ কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ, পুকুর ও ক্যাফেটেরিয়াসহ মোট ১৮ একর জুড়ে এই ক্যাম্পাস।

 

একাডেমিক পড়াশোনার পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রমগুলোর মধ্যে সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও সৃজনশীলতা চর্চার মাধ্যমেও এগিয়ে যাচ্ছে বেশকিছু সংগঠন। তরুণ প্রজন্মের দক্ষতা, বিচক্ষণতা ও আত্ম সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে এসব সংগঠনের কার্যক্রমের ভূমিকা ব্যাপক। যেমন: ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতি, তরুণ লেখক ফোরাম, রোভার স্কাউট, বাঁধন, বিতর্ক সংসদ, যুব রেড ক্রিসেন্ট, বিএনসিসি, আবৃত্তি সংসদ, মিউজিক স্কুল, নাট্য সংসদ, বিজ্ঞান ক্লাব, বিজনেস ক্লাব, সামাজিক বিজ্ঞান ক্লাব, ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ ক্লাবসহ আরো অসংখ্য সংগঠন রয়েছে। তরুণদের সৃজনশীলতার চর্চার মাধ্যমে দেশের সুনাগরিক, আত্মবিশ্বাসী ও সুদক্ষ ব্যক্তিতে পরিণত করার নেপথ্যে ব্যাপক তাৎপর্যময় ভূমিকা রাখছে।

 

বলা যায়, ঢাকা কলেজ ইতিহাসের পাতায় লেখা একটি নাম। এছাড়াও আধুনিক শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষা, সংস্কৃতির সুস্থ চর্চার মাধ্যমে সমাজকে আলোকিত করার প্রত্যয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠার ১৮১ বছরের সমাপ্তি ও ১৮২তম বর্ষে পদার্পণের মাধ্যমে সাফল্যের ধারা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছি। ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক হিসেবে দেশ ও জাতির কল্যাণে এগিয়ে যাক ঢাকা কলেজ। দীর্ঘ পথচলা শুভ হোক।

 

শিক্ষার্থী, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ
সম্মান ৪র্থ বর্ষ, ঢাকা কলেজ।

এই বিভাগের আরো খবর