Berger Paint

ঢাকা, শনিবার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ১১ ১৪২৭

ব্রেকিং:
ইউক্রেনে সামরিক বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ২২ সাভারের নীলার হত্যাকারী মিজানুর গ্রেফতার সাভারে গ্যাস বিস্ফোরণে দগ্ধ ২ জনের মৃত্যু টিকা না পেলে করোনায় বিশ্বে মারা যাবে ২০ লাখ : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এমসি কলেজে স্বামীকে বেঁধে তরুণীকে গণধর্ষণ: ৬ ছাত্রলীগ নেতাকে আসামি করে মামলা
সর্বশেষ:
লিবিয়া উপকূলে নৌকা ডুবে ১৬ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা এবার ওসি প্রদীপের ৭ ইন্ধনদাতার বিরুদ্ধে মামলা ৩ বিভাগে আজ থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে ১১ দিনে ভারত গেল ৫০৩ মেট্রিক টন ইলিশ

চীনে খোলা যাচ্ছে না এলসি বা লেটার অব ক্রেডিট

প্রতিদিনের চিত্র ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

পঠিত: ২০০
ছবি-সংগৃহীত

ছবি-সংগৃহীত

চীনে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। ফলে দেশটিতে অধিকাংশ অফিস ও ব্যাংক বন্ধ রয়েছে। এতে বিভিন্ন দেশে চীনের পণ্য সরবারহ ব্যাপকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্যেও। চীন থেকে আমদানি করা কাঁচামাল সময় মতো পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় আছেন আমদানিকারকরা। শঙ্কায় আছেন রফতানিকারকরাও। নতুন করে দেশটিতে এলসি  (লেটার অব ক্রেডিট) খোলা যাচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে চায়না-বাংলাদেশ বিজনেস ক্লাবের সভাপতি ও চীনের পণ্য আমদানিকারক আবদুল মোমেন বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের কারণে চীনে এখন অধিকাংশ অফিস ও ব্যাংক বন্ধ। ফলে আমরা চেষ্টা করেও চীনে কোন এলসি খুলতে পারছি না। এই সপ্তাহে আমার পাঁচটি এলসি হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু ব্যাংক খুলতে পারেনি। রফতানিও বন্ধ হয়ে গেছে।’

তিনি জানান, এখন এমন পরিস্থিতি যে অন্য কোন দেশেও এলসি খোলা যাচ্ছে না। কারণ বিকল্প কোন দেশই পাওয়া যাচ্ছে না। চীন বাদ দিয়ে ভারতের দিকে গেলে তারাও চীনের ওপর নির্ভরশীল। তাইওয়ান, হংকং, সিঙ্গাপুরে পণ্যের জন্য অর্ডার দিলেও কাজ হচ্ছে না। কারণ তারাও চীনের ওপর নির্ভরশীল।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, চীন থেকে সবচেয়ে বেশি কাঁচামাল, যন্ত্রপাতি, তৈরি পণ্য আমদানি করে বাংলাদেশ। গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে চীন থেকে ১ লাখ ১৪ হাজার কোটি টাকার পণ্য আমদানি হয়েছে যা মোট আমদানির ২৬ শতাংশেরও বেশি।

এই বিভাগের আরো খবর