ঢাকা, শনিবার   ২৮ মে ২০২২,   জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
ইউক্রেনের আগে স্কুলের সুরক্ষায় টাকা ঢালা উচিত আমেরিকার: ট্রাম্প মাংকিপক্স: গণটিকার প্রয়োজন নেই বলল ডাব্লিউএইচও করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৯ লাখ, মৃত দেড় সহস্রাধিক ২০টিরও বেশি দেশে মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত ২০০ জন: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা রাতে ফাইনালে মুখোমুখি লিভারপুল-রিয়াল রাজধানীতে যুবদলের বিক্ষোভ সমাবেশ দেশে এল গাফ্‌ফার চৌধুরীর মরদেহ, দুপুরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা

জুম পাহাড়ের জীবন ধারা

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি 

প্রকাশিত: ১৪ নভেম্বর ২০২১  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর অধিকাংশই জুম চাষের ওপর নির্ভরশীল। পাহাড়ে জুমের ফসল ফলিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন তারা।

 

পাহাড়ে চাষাবাদ করার সময় মাটি থেকে প্রায় আড়াই-তিন ফুট উঁচুতে বাঁশ ও কাঠ দিয়ে মাচাং ঘর বানান জুমিয়ারা। এখানেই কাজের ফাঁকে খাওয়া-দাওয়া পর্বটি সেরে একটু জিরিয়ে নেন তারা। চাষাবাদ করতে ভোরে ঘর থেকে বের হন জুমিয়ারা। চলে আসেন উঁচ-নিচু সবুজে ঘেরা পাহাড়ে।

 

 বিক্রির জন্য মারফা, কচু, বেগুন, ভুট্টা, আদা, হলুদ, বাঁশ, তিত করলাসহ নানা রকম শাকসবজি নিয়ে দূর-দূরান্ত থেকে হাট-বাজারে আসেন। পুরুষের চেয়ে পাহাড়ি নারীরা বেশি পরিশ্রমী। সংসার সামাল দেওয়া, জুম চাষ করা এবং জুম থেকে ঝুঁড়িতে করে কৃষিপণ্য মাথায় নিয়ে হাট-বাজারে ছুটে যান তারা।

 

পাহাড়ের স্থানীয় খাবারের তালিকায় যে নামটি প্রথমে আসে সেটি হলো কচি বাঁশ। হরেক পদের খাবারে বাড়তি মাত্রা যোগ করে এটি। মাংস কিংবা সবজি- বাঁশ থাকবেই। এছাড়া বাঁশ সিদ্ধ কিংবা বাঁশ দিয়ে রান্না করা ডাল ভোজনরসিকের ষোলআনা পূর্ণ করে।
 

এই বিভাগের আরো খবর