ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৬ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১০ ১৪২৮

ব্রেকিং:
দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন ভার্সন`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের অনুরোধ করা হল। নিয়োগ পেতে কেউ অসদুপায়ে আর্থিক লেন-দেন করে থাকলে তার জন্য কর্তৃপক্ষ (প্রকাশক ও সম্পাদক) দায়ী থাকবেনা।
সর্বশেষ:
স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে ত্যাগীদের নাম পাঠানোর নির্দেশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ডিও লেটার জালিয়াতি, সতর্কতা জারি সাহেদকে জামিন দিতে হাইকোর্টের রুল আফগানিস্তান সীমান্তে আগ্রাসনের বিরুদ্ধে তালেবানের হুঁশিয়ারি সুদানের প্রধানমন্ত্রী আব্দাল্লাহ হামদক গৃহবন্দি বাংলাদেশে কেউ সংখ্যালঘু নয়: তথ্যমন্ত্রী

ট্রাফিক পুলিশের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে নিজ মোটরসাইকেলে আগুন

প্রতিদিনের চিত্র ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 

‘মামলা দেয়ায়’ নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে প্রতিবাদ করেছেন শওকত আলম সোহেল নামে এক পাঠাও চালক। আজ সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে রাজধানীর বাড্ডা লিংক রোডে এ ঘটনা ঘটে।

 

বাইকটি আগুনে পুড়ে যাওয়ার একটি ভিডিও ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওতে দেখা যায়, মোটরসাইকেলটিতে দাউ দাউ আগুন জ্বলছে। পাশের লোকজন ছুটে এসে পানি দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করছেন। কিন্তু ততক্ষণে পুড়ে গেছে বাইকটি।

 

এক ব্যক্তি ওই ভিডিওটি পোস্ট করে লিখেছেন, মনের কষ্টে গ্যাসলাইট দিয়ে নিজেই আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন শওকত আলম সোহেল নামে ওই ব্যক্তি। অনেক চেষ্টা করেও আগুন নেভাতে চেষ্টা করলাম। কিন্তু ততক্ষণে সব শেষ।

 

জানা গেছে, আগে থেকেই ওই মোটরসাইকেলটিকে একটি মামলা দেওয়া ছিল। কাগজপত্রে ‘সামান্য ত্রুটি’ থাকায় পুলিশ ফের মামলা দেওয়ায় মনের কষ্টে এ কাণ্ড ঘটিয়েছেন ওই বাইকার।

 

তবে মামলা দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন গুলশান ট্রাফিক জোনের ডিসি রবিউল ইসলাম।

 

তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, তার বাইকের নামে মামলা দেওয়ার জন্য কাগজপত্র নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু মামলা দেওয়া হয়নি। তার আগেই তিনি তার মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেন।

 

ডিসি রবিউল ইসলাম আরও বলেন, রাজধানীর বাড্ডার লিংক রোডে সব সময় যানজট লেগেই থাকে। সেখানে যা চলাচল স্বাভাবিক করতে রাস্তার পাশে রাখা মোটরসাইকেলগুলো সরানোর জন্য বলা হয়। কিন্তু তাতেও কাজ না হওয়ায় মামলা দেওয়ার জন্য তাদের কাগজপত্রগুলো নেওয়া হয়।

 

মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেওয়া ওই ব্যক্তি বর্তমানে বাড্ডা থানায় আছেন বলে জানান তিনি।

 

এ বিষয়ে মিরাদুল মুনিম নামে এক প্রত্যক্ষদর্শী গণমাধ্যমকে জানান, সকালে অফিসে যাওয়ার পথে দেখি পুলিশের সামনেই বাইকের তেলের চাবি ছেড়ে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিচ্ছে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই আগুন ততক্ষণে দাও দাও করে জ্বলছে। আর পুলিশ চেয়ে চেয়ে দেখছে। আমি নিজে আগুন নেভাতে চাইলেও লোকটি আমাকে বাধা দেয়, দে এবার মামলা দে.... বলে চিৎকার করতে থাকে লোকটি।

এই বিভাগের আরো খবর