ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২,   আষাঢ় ১১ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
পদ্মায় স্বপ্নপূরণের ক্ষণগণনা
১৮দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
০৬মিনিট
:
১০সেকেন্ড
সর্বশেষ:
সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানালেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর মধ্য দিয়ে দেশ নতুন যুগে প্রবেশ করেছে: শিক্ষামন্ত্রী মাথা নোয়াইনি, কখনো নোয়াবো না: প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থলে লাখো মানুষের ঢল দেশে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৩ পদ্মা সেতুতে টোল দিলেন প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করা হলো স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই, বললেন প্রধানমন্ত্রী

নীলফামারীতে নারীদের স্বাবলম্বী করে তুলছে স্বপ্ন চূড়া হস্ত কুটির শিল্প

বিকাশ রায় বাবুল, নীলফামারী

প্রকাশিত: ২৩ জুন ২০২২  

ছবি- প্রতিদিনেরচিত্র বিডি।

ছবি- প্রতিদিনেরচিত্র বিডি।

 

কিছুদিন আগেও এখানকার  নারীদের  অলস সময় কাটত, পরিবার-পরিজন ও সংসার নিয়ে ছিল দুঃচিন্তা। স্বামীর একার আয় দিয়ে সংসার চালানো ছিল খুবই কষ্টকর।  কিন্তু মাত্র কয়েক মাসের ব্যবধানেই পাল্টে গেছে সবকিছু।

 

সংসারে ফিরেছে স্বচ্ছলতা, হয়েছেন  স্বাবলম্বী, মুখে ফুটেছে হাসি। আর এ সবকিছুর মূলে  পারঘাট আলোর বাজারের  সমন্বয়ক শংঙ্কর  রায় সহ তার কয়েক বন্ধুর সমন্বয়ে সামান্য কিছু পুঁজি নিয়ে গড়া  স্বপ্ন চূড়া হস্ত কুটির শিল্প।

 

নীলফামারী সদর উপজেলার লক্ষীচাপ ইউনিয়নের পারঘাট আলোর বাজারে গড়ে ওঠা স্বপ্ন চূড়া হস্ত কুটির শিল্প থেকে লক্ষীচাপ,  পলাশবাড়ী এবং পাশ্ববর্তী ডোমার উপজেলার  হরিণচড়া ও সোনারায় ইউনিয়নের ৩৬০ জন নারী  মাত্র এক মাসের  প্রশিক্ষন নিয়ে কাজ করে হয়েছেন স্বাবলম্বী।  

 

এখানে নারীরা অবসর সময়ে বাড়িতে বসেই তাদের নিপুন হাতে ২০ ধরনের নানান আকৃতির পন্য  তৈরি করছেন। তারা  পাট দিয়ে তৈরি করছেন  ম্যাট, আনিশা ম্যাট, ওয়াল ম্যাট, রাউন্ড ম্যাট, ব্যাগ এবং হোগলা পাতা দিয়ে  ইউসেফ,  ফুলদানী, টব, বাস্কেট সহ নানান রকমের পন্য।  

 

এসব পণ্যের বাজার মূল্য প্রায় ৩০০-১০০০ টাকা পর্যন্ত। সপ্তাহে ২-৩ দিন নারীরা তাদের তৈরীকৃত এসব পন্য  হস্তান্তর করেন এখানে।  আর এতেই তাদের মাসিক আয় হয়   আনুমানিক ৫০০০- ৭০০০ টাকা।

 

এ সব পন্য তৈরির কাচাঁমালের যোগান আর্টিশান ও বিডিকেশন কোম্পানী দিয়ে থাকে এবং মাঝে মধ্যে নিজ উদ্দ্যোগে নোয়াখালী, ফেনী, ভোলা, বরিশাল কুমিল্লা থেকে কাচাঁমাল সংগ্রহ করা হয় এবং তৈরিকৃত সকল পন্য বিডিকেশন ও আর্টিশান কোম্পানির মাধ্যমে পাঠানো  হয় জার্মানী, জাপান, ইতালি, ফ্রান্স, মরোক্ক, হংকংসহ বিদেশের  বিভিন্ন জায়গায়।

 

একটা সময় যে  গ্রামীন নারীদের সময় কাটত অলসভাবে তারাই এখন স্বপ্ন দেখছেন আকাশ ছোঁয়া।


পলাশবাড়ী ইউনিয়নের সুমিত্রা রানী,  কনিকা রানী , ফুলো বালা , বলেন এখান থেকে আয় করে তাদের সংসারের স্বচ্ছলতা ফিরে এসেছে। এখন আর আগের মত সংসারে অভাব মনে হয় না তাদের।  অনেক ভালো আছেন তারা।

 

এ বিষয়ে কথা হলে স্বপ্নচূড়া হস্ত কুটির শিল্পের সমন্বয়ক শংকর রায় বলেন, গ্রামাঞ্চলের নারীদের স্বাবলম্বী করাই আমাদের মূল লক্ষ্য। আমরা চাই তারা যেন এখানে কাজ করে তাদের জীবনমানের উন্নয়ন করতে পারে।

এই বিভাগের আরো খবর