ঢাকা, শুক্রবার   ২৯ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১৩ ১৪২৮

ব্রেকিং:
সাবার জ্ঞাতার্থে বিশেষ অবগতি: শরীফুল ইসলাম, প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার`প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ আর কাজ করছেন না। অতএব, তার সাথে পত্রিকা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে যোগাযোগ না করার জন্য অনুরোধ করা হল। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন কারণে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
অবশেষে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘দুর্নীতি’র তদন্ত করছে ‘দুদক’ ২য় ডোজের টিকা প্রয়োগ শুরু, পাবে ৮০ লাখ মানুষ মোহনবাগানের দায়িত্ব ছাড়লেন সৌরভ গাঙ্গুলি চাকরি হারালেন বার্সা কোচ কোম্যান রায়পুরায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ৪০ অ্যাপস ছাড়া চুক্তিভিত্তিক রাইড শেয়ারে কঠোর ব্যবস্থা: বিআরটিএ সাবার জ্ঞাতার্থে বিশেষ অবগতি: শরীফুল ইসলাম, প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার`প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ আর কাজ করছেন না। অতএব, তার সাথে পত্রিকা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে যোগাযোগ না করার জন্য অনুরোধ করা হল।

পেঁয়াজে অস্থিরতার মধ্যেই মণপ্রতি ২০০ টাকা বাড়ল ভোজ্যতেলের দাম

প্রতিদিনের চিত্র ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

 

এবার মণপ্রতি প্রায় ২০০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে ভোজ্যতেলের দাম। চাল, পেঁয়াজের পর ভোজ্যতেলের দাম বৃদ্ধিতে নাভিশ্বাস উঠছে দেশের সাধারণ মানুষের।

 

জানা গেছে, চট্টগ্রাম খাতুনগঞ্জের পাইকারি বাজারে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রতি মণ সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছিল ৩ হাজার ৪০০ টাকা দরে, যা এর আগের দিন ছিল ৩ হাজার ২৯০ টাকা। প্রতি মণ সুপার পাম তেল বিক্রি হচ্ছিল ৩ হাজার ২০০ টাকা দরে, যা আগের দিনই বিক্রি হয় ৩ হাজার টাকা দরে। প্রতি মণ পাম তেল বিক্রি হয় ২ হাজার ৯৯০ থেকে ৩ হাজার টাকা দরে, অথচ আগের দিনই বিক্রি হয়েছে ২ হাজার ৮৭০ টাকা দরে।

 

ভারতের পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ ঘোষণায় সিন্ডিকেটের অস্থির হয়ে উঠেছে পেঁয়াজের বাজার। যা এখনো নিয়ন্ত্রণে আসেনি। গতকাল আবারো বেড়েছে কেজি প্রতি ১০ টাকা। আগের কেনা পেঁয়াজ গতকালও প্রায় দ্বিগুণ দামে ৬৫ টাকা কেজি দরে পাইকারিতে বিক্রি হচ্ছিল খাতুনগঞ্জে। খুচরা বাজারেও এর প্রভাব ছিল সমানতালে। প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছিল ৭০-৭৫ টাকা কেজি দরে।

 

ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের পর এরই মধ্যে চীন, মিসর, পাকিস্তান, মিয়ানমারসহ সাতটি দেশ থেকে প্রায় ৩০ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানির অনুমতিপত্র ইস্যু করেছে চট্টগ্রামস্থ কৃষি বিভাগের উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্র। তবে ব্যবসায়ীরা বলছেন, ভারতের রফতানি বন্ধের পরিপ্রেক্ষিতে পেঁয়াজের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় অন্য রফতানিকারক দেশগুলোর ব্যবসায়ীরাও সুযোগ নিচ্ছেন। হঠাৎ চাহিদার কারণে টনপ্রতি ১০০ ডলার দাম বাড়ানো হয়েছে বলে দাবি আমদানিকারকদের।

এই বিভাগের আরো খবর