Berger Paint

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২,   আশ্বিন ১৪ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
এসএসসির নির্বাচনি পরীক্ষার ফল ৩০ নভেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ কোনো দলকে সমর্থন নয়, বাংলাদেশে সুষ্ঠু নির্বাচন চায় যুক্তরাষ্ট্র দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে ভারত আরও তিন বছরের সাজা পেলেন অং সান সু চি করতোয়ায় নৌকাডুবি: পঞ্চম দিনের উদ্ধার অভিযান চলছে

প্রবাসীদের টাকায় লেগে আছে ঘাম ও অশ্রু- আব্দুর রহিম

মারুফ সরকার

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২  

ছবি- প্রতিদিনেরচিত্র বিডি।

ছবি- প্রতিদিনেরচিত্র বিডি।

নোয়াখালী সোনাইমুড়ির কৃতি সন্তান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সমাজসেবক কলামিস্ট রেমিটেন্স যোদ্ধা প্রবাসী আব্দুর রহিম খান। জীবনের অর্ধেক টা সময় কাটিয়ে দিয়েছেন প্রবাসের। দীর্ঘদিনের প্রবাসে থাকার অভিজ্ঞতায় জানিয়েছেন আমাদের।একদম সরল উক্তিতে আব্দুর রহিম বলেন বিদেশে আছি। দেশের জন্য মনটা সবসময় উচাটন থাকে। দেশের ভালো খবরে উৎফুল্ল হই, খারাপ খবরে মনটা বিষণ্ণ হয়ে যায়। তিনি বলেন বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির পিছনে তিনটি সেক্টরের গভীর অবদান রয়েছে৷ এগুলো হলো গার্মেন্টস, সেবা এবং অভিবাসন খাত৷ ২০৩২ সালের মধ্যে বাংলাদেশ ২৫টি বড় অর্থনীতির দেশের একটি হবে—এই তথ্য যে চমকপ্রদ, তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

 

 ২০৩৩ সালের মধ্যে আমাদের পেছনে থাকবে সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, ভিয়েতনাম ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দেশগুলো—এটা ভাবলে যুগপৎ বিস্মিত ও রোমাঞ্চিত হতে হয়। তবে সেন্টার ফর ইকোনমিকস অ্যান্ড বিজনেস রিসার্চের (সিইবিআর) মতো যুক্তরাজ্যভিত্তিক গবেষণাপ্রতিষ্ঠান যখন এসব আশাবাদের কথা শোনায়, তখন ব্যাপারটাকে আর অবিশ্বাস্য মনে হয় না। তা ছাড়া, আগামী ১৫ বছরে বাংলাদেশ ১৭টি দেশকে পেছনে ফেলে যেতে পারে বলে যে ভবিষ্যদ্বাণী করা হচ্ছে, তাকে উড়িয়ে দেওয়ার তো উপায় নেই। কারণ, এই দেশটিই গত ১৫ বছরে টপকে এসেছে তার চেয়ে এগিয়ে থাকা ১২টি দেশকে।


তবে সিইবিআরের নির্বাহী পরিচালক এ কথাও বলেছেন, এগুলো শুধু সংখ্যাগত তথ্য-উপাত্ত। কীভাবে সেই সম্ভাবনাকে বাস্তবে পরিণত করা যায়, সেটা বিবেচনায় নিতে হবে। বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির যে কারণগুলো দেখানো হয়েছে, তার মধ্যে প্রধান একটি হচ্ছে, প্রবাসী আয়। কাঁচামাল আমদানির খরচ বাদ দিলে তৈরি পোশাক খাতের চেয়ে তিন গুণ বেশি নিট বৈদেশিক মুদ্রা আয় হচ্ছে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স থেকে। সেই সত্তরের দশক থেকে এ পর্যন্ত বিশ্বের ১৬২টি দেশে বাংলাদেশ থেকে প্রায় দেড় কোটি শ্রমিক গেছেন। তাঁদের অধিকাংশই গেছেন মধ্যপ্রাচ্য ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে। অভিবাসন প্রক্রিয়া মেনে যাঁরা বিদেশে গেছেন, তাঁরা নিঃসন্দেহে ভাগ্যবান। কিন্তু সরকারের গৃহীত বিভিন্ন ব্যবস্থা সম্পর্কে না জেনেও বিদেশে পাড়ি জমাচ্ছেন অনেকে এবং তাঁদের সংখ্যাই বেশি।


শ্রমিকদের পাঠানো অর্থে দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি যেমন ঘটেছে, তেমনি বেঁচে আছে তাঁদের ওপর নির্ভরশীল লাখ লাখ পরিবার। কিন্তু পরিতাপের বিষয়, এই প্রবাসী শ্রমিকদের অভিবাসন প্রক্রিয়াকে এখনো নিরাপদ

এই বিভাগের আরো খবর