Berger Paint

ঢাকা, শুক্রবার   ২৯ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪২৭

ব্রেকিং:
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে কুরুচিকর পোস্ট করায় বাংলাদেশী গায়ক মইনুল আহসান নোবেলের বিরুদ্ধে দায়ের করা হয়েছে এফআইআর। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম ব্যবস্থাপক আশরাফ আলী (৬০) মারা গেছেন।
সর্বশেষ:
পশ্চিমবঙ্গে প্রবল ঝড়ে ফের ক্ষয়-ক্ষতি, ২ জনের প্রাণহানি ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুন; ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন বগুড়ায় একদিনে ৫০ জনের করোনা শনাক্ত

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান লিখলেন গাজী মাজহারুল ও কুমার বিশ্বজিৎ

প্রকাশিত: ৩১ অক্টোবর ২০১৯  

পঠিত: ১২৩০
ছবি - সংগৃহীত

ছবি - সংগৃহীত

আগামী বছর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী। বিষয়টি সামনে রেখে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে একটি গানের পরিকল্পনা আগেই করেছিলেন স্বনামধন্য সংগীতশিল্পী কুমার বিশ্বজিত।

‘হে বন্ধু বঙ্গবন্ধু, তোমার কালো ফ্রেমের চশমাটা আমায় দাও, আমি চোখে দিয়ে দেখব, তুমি কেমন করে দেশটাকে এতো ভালোবাসো’- এমন কথার একটি গান গাইতে পারায় ভীষণ আনন্দিত কুমার বিশ্বজিৎ।

তিনি বলেন, এটি শুধু একটি গান নয়, এটি তরুণ প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধুর ভাবনাচিন্তা, দেশপ্রেম, অসাম্প্রদায়িক মনোভাব প্রদর্শনের একটি গল্প বলা’

‘হে বন্ধু বঙ্গবন্ধু’ গানের কথা লিখেছেন দেশবরেণ্য গীতিকবি গাজী মাজহারুল আনোয়ার। সংগীতায়োজন করেছেন মানাম আহমেদ, আর সুর করেছেন কিশোর। সম্প্রতি শিল্পীর উত্তরার স্টুডিওতে গানটির কণ্ঠ ধারণের কাজ শেষ হয়েছে। মিক্স মাস্টারিংয়ের জন্য মুম্বাইয়ে পাঠানো হয়েছে গানটি।

গাজী মাজহারুল আনোয়ার বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধ  শেষে বঙ্গবন্ধু যখন ক্ষমতায় এলেন, অনেকেই তার সঙ্গে দেখা করেন। আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা। যাবই যেহেতু দেখা করতে, মনে চাইল বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে একটি গান লিখে নিয়ে যাই। তিনি আমাকে এমনিতেই আদর করতেন। বঙ্গবন্ধুকে মনেপ্রাণে ভালোবাসা থেকে ‘হে বন্ধু বঙ্গবন্ধু, তোমার কালো ফ্রেমের চশমাটা আমায় দাও’ কবিতাটি লিখে নিয়ে যাওয়ার পর তার খুব পছন্দ হলো। শুনেছিলাম, এটি তিনি বাঁধাই করে ঘরের দেয়ালে রেখেছিলেন।

তিনি বলেন, মাস ছয়েক আগে কুমার বিশ্বজিৎ এই কবিতার খোঁজ পায়। তারপর এটিকে গানে রূপান্তর করার অনুমতি চায়। আমি বলেছি, অনুমতির কিছু নাই, গান বানাবে, এটা তো খুবই আনন্দের খবর। গানটি হবার পর শুনে খুব ভালো লাগলো।’

এই বিভাগের আরো খবর