ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রাহায়ণ ৫ ১৪২৬

ব্রেকিং:
৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ শাহাদাত কাল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ট্রাক-কাভার্ডভ্যান শ্রমিকদের কর্মবিরতি
সর্বশেষ:
শেষ টেস্ট খেলতে কলকাতার পথে টাইগাররা, মূল চ্যালেঞ্জ বোলারদের মনে করেন পেসার আল-আমিন হোসেন পেঁয়াজের পর চালের দাম বাড়ানোর ষড়যন্ত্র চলছে : নাসিম পদ্মা সেতুতে বসেছে ১৬তম স্প্যান আজ কার্গো বিমানে পেঁয়াজের প্রথম চালান আসছে বিটিআরসির কলসেন্টারে ৭ হাজার ৯০৮ অভিযোগ প্রধানমন্ত্রী আজ রাতে দেশে ফিরছেন তিনটি বিলে সম্মতি প্রদান করেছেন রাষ্ট্রপতি

বীজ আলু সরবরাহ করবে সরকার

প্রতিদিনের চিত্র রিপোর্ট

প্রকাশিত:  

পঠিত: ২৬

রোগমুক্ত, উন্নত মানের ও জাতের ১ লাখ ৮৭ হাজার ৭৪ মেট্রিক টন বীজ আলু উৎপাদন, সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও সারা দেশের কৃষকদের কাছে সরবরাহ করবে সরকার। এজন্য ৬৪৪ কোটি ২১ লাখ ১২ হাজার টাকার একটি প্রকল্প জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের ‘মানসম্পন্ন বীজ আলু উৎপাদন ও সংরক্ষণ এবং কৃষক পর্যায়ে বিতরণ জোরদারকরণ’ শীর্ষক এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন (বিএডিসি)।

এ প্রকল্পের মাধ্যমে নতুন হিমাগার স্থাপন এবং বিদ্যমান হিমাগারগুলো আধুনিকায়নের মাধ্যমে বীজ আলু সংরক্ষণ ক্ষমতা ৮ হাজার মেট্রিক টন বৃদ্ধি এবং চুক্তিবদ্ধ চাষি, ডিলার, বেসরকারি বীজ উৎপাদনকারী, এনজিও ও সাধারণ কৃষকদের আধুনিক আলু চাষের কৌশলের শেখানো এবং দক্ষতা উন্নয়নে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানিয়েছেন, গত একনেক সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন দেয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের দেশে প্রচুর আলু উৎপাদন হয়, যা আমরা খেয়ে শেষ করতে পারি না। তাই এখন থেকে আলু রপ্তানি করতে হবে। সেজন্য ভালো মানের আলুর বীজ আনতে হবে। ভালো করে সার্টিফায়েড করার জন্য ভালো মানের ল্যাবরেটরি বানানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রকল্পটি দেশের ৪২ জেলার ১৭৮টি উপজেলায় বাস্তবায়িত হবে। বাস্তবায়নকাল ধরা হয়েছে ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২৩ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত।

প্রকল্পের প্রধান কার্যক্রমসমূহ হচ্ছে- চারটি নতুন হিমাগার নির্মাণের মাধ্যমে বীজ আলুর ধারণক্ষমতা ৮ হাজার মেট্রিক টন বাড়ানো, বিদ্যমান ৩০টি হিমাগার সার্ভিসিং-ওভারহোলিং এবং পুরাতন দুটি হিমাগার সংস্কার ও আধুনিকায়ন; তিনটি অফিস ভবন, ২০ হাজার বর্গমিটার সর্টিংশেড, ২ হাজার রানিং মিটার সীমানা প্রাচীর, ৮০০ বর্গমিটার থ্রেসিং ফ্লোরসহ ইমপ্লিমেন্ট শেড, গ্যারেজ ইত্যাদি আনুষঙ্গিক স্থাপনা ও ৩ হাজার মিটার ব্যারিড পাইপ লাইন নির্মাণ, ৩ দশমিক ৫৯ একর ভূমি অধিগ্রহণ, ৬৭ দশমিক ৪৮ লাখ চটের বস্তা ও ৪ হাজার ত্রিপল, ৪১৪টি কৃষি ও সেচ যন্ত্রপাতি এবং সরঞ্জাম এবং খুচরা যন্ত্রাংশ ক্রয় এবং ১ হাজার ৫০০টি প্রদর্শনী প্লট স্থাপন এনজিওকর্মী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য প্রশিক্ষণের আয়োজন করা।

পরিকল্পনা কমিশন জানায়, সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় কৃষি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সংস্থাগুলোকে আরো শক্তিশালী করার ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় আলু বীজ উৎপাদন ও কৃষক পর্যায়ে বিতরণ কার্যক্রম জোরদারকরণের পাশাপাশি বিএডিসির সক্ষমতা বৃদ্ধির কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে।