Berger Paint

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০১ অক্টোবর ২০২০,   আশ্বিন ১৬ ১৪২৭

ব্রেকিং:
এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ২নং আসামি তারেক গ্রেফতার কুয়েতের নতুন আমির শেখ নওয়াফ আল আহমদ লাইফ সাপোর্টে হাসানাত আব্দুল্লাহ বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায় আজ
সর্বশেষ:
উচ্চ আদালতে বেপরোয়া জামিন জালিয়াত চক্র রাজশাহীতে ফাদারের বিরুদ্ধে গির্জায় কিশোরীকে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ মারা গেছেন

বেড়েছে চাল, কমেছে পেঁয়াজ

প্রতিদিনের চিত্র ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০২০  

পঠিত: ৪৪৬
ছবি - সংগৃহীত

ছবি - সংগৃহীত

হঠাৎ করে বেড়েছে চাল, ডাল এবং চিনির দাম। তবে কমেছে পেঁয়াজের দাম। অপরিবর্তিত রয়েছে রসুন ও আদার দাম। সপ্তাহের ব্যবধানের চালের দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি ২ টাকা। মোটা মুসর ডালের দাম বেড়েছে ৫-১০ টাকা, আর চিনির দাম বেড়েছে কেজি প্রতি ৫ টাকা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, আড়ৎ থেকে বেশি দামে ক্রয় করতে হয় তাই বেশি দামে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছি। আমাদের কিছু করার নেই।

চাল ব্যবসায়ীরা বলছেন, নতুন চালের তুলনায় পুরাতন চালের দাম বেশি বেড়েছে। ধানের দাম বাড়ায় চিকন চালের দামও বেড়েছে। আর সরকার প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে চাল কিনছে বলে দাম বেড়েছে মোটা চালের।

বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) রাজধানীর সেগুনবাগিচা এবং শান্তিনগর কাঁচাবাজারে ঘুরে দেখা গেছে, মিনিকেট চাল বিক্রি হচ্ছে ৫২ টাকা কেজিতে। গত সপ্তাহে যা ছিল ৪৮-৫০ টাকা। ভালো মানের নাজিরশাইল চাল বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৫৮-৬০ টাকায়। আর গত সপ্তহে এই চাল বিক্রি হয়েছে ৫৫-৫৬ টাকা কেজি দরে। মাঝারি মানের নাজিরশাইল চাল বিক্রি হচ্ছে ৫২টাকা কেজিতে।

বাজারে পাইজাম চাল বিক্রি হচ্ছে ৩৬ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ৩৪ টাকা। বিআর পুরাতন ২৮ চাল বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা কেজিতে। অথচ গত সপ্তাহে এই চাল বিক্রি হয়েছে ৩৬-৩৮ টাকা দরে। নতুন ২৮ চাল বিক্রি হচ্ছে ৩৮টাকা কেজিতে। তবে শান্তিনগর বাজারে ৩৮ টাকা কেজিতে বিক্রি হওয়া বালাম চাল সেগুন বাগিচায় বিক্রি হচ্ছে ৪৮টাকা কেজিতে। অর্থাৎ বাজার ভেদে কেজি প্রতি ১০ টাকা করে পার্থক্য দেখা গেছে।

সেগুনবাগিচা কাঁচাবাজারের মদিনা মেসার্স এন্টারপ্রাইজের মালিক  বলেন, ২৪'শ টাকার মিনিকেটের চালের বস্তা এখন ২৭শ টাকায় কিনতে হচ্ছে। এছাড়া আরও অনেক খরচ আছে। তাই ৫২ টাকা কেজিতে বিক্রি করতে হচ্ছে।

দাম বাড়ার কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, শুনেছি ধানের দাম বাড়ায় চিকন চালের দাম বেড়েছে। আর সরকার ৩৪ টাকা কেজি দরে প্রান্তিক লেভেলে থেকে চাল কেনার ফলে মোট চালের দাম বেড়েছে। এসব কারণে সব চালের দাম বেড়েছে।

তবে তার সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছেন শান্তিনগরের চাল ব্যবসায়ী রুকন উদ্দিন। তিনি বলেন, পুরাতন চিকন চালের দাম বেড়েছে তার যৌক্তিকতা আছে কিন্ত নতুন চালের দাম কেন বেড়েছে? আমরা বাবু বাজার থেকে চাল কিনে এনে খুচরা বিক্রি করি। কিন্তু চালের দাম কেন বাড়ছে তার কোনো ব্যখ্যা পাই না।

একই বাজারের ব্যবসায়ী এনামুল হক  বলেন, চিকন মুসর ডালের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। এই ডাল প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায়। তবে মোট মুসর ডাল কেজিতে ১০ টাকা বেড়েছে। গত সপ্তাহে ৫৫-৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি হওয়া মোট ডাল এখন বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা কেজিতে। ১২০ টাকা কেজির মুগ ডাল বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকা কেজিতে। আদা বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ১৬০ টাকা, আর রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা কেজিতে।

একই বাজারে দেশি ভালো মানের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকা কেজিতে। আমদানিকৃত আপেলের মতো দেখতে সাদা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা কেজিতে। আর ভালো মানের বিদেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৯০ টাকা কেজিতে।

 

এই বিভাগের আরো খবর