ঢাকা, সোমবার   ২৭ জুন ২০২২,   আষাঢ় ১৪ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
পদ্মায় স্বপ্নপূরণের ক্ষণগণনা
১৮দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
০৬মিনিট
:
১০সেকেন্ড
সর্বশেষ:
রাজধানীতে অজ্ঞাত গাড়ির ধাক্কায় ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী নিহত ফের করোনায় আক্রান্ত ফখরুল মুরগির দাম কেজিতে কমেছে ২০-২৫ টাকা পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে যানজট সৌদি পৌঁছেছেন ৩৮ হাজার ৮৮৯ জন হজযাত্রী, ৬ জনের মৃত্যু পদ্মা সেতুতে প্রথম টোল দিয়ে পাড়ি দিল মোটরসাইকেল পদ্মা সেতু পারাপারে যানবাহনের দীর্ঘ সারি

বৈশ্বিক মহামারীতেও বাংলাদেশের কৃষি বিপ্লব

ফাহাদ বিন সাঈদ

প্রকাশিত: ১৩ আগস্ট ২০২০  

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

 

জীবিকা নয়, জীবনের তাগিদে লড়ছে মানুষ।করোনারোগী দেশে প্রথম শনাক্ত হয় ৮ মার্চ। শুরুর দিকে তিন জন হলেও সেই থেকে শুরু। আজ পাঁচ  মাসে করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে হাজার পেরিয়ে লাখের বেশি। যদিও আমাদের করোনা পরীক্ষার সক্ষমতা নিয়ে নানা সীমাবদ্ধতা ছিল। এখন অবশ্যই পরিধি বাড়ছে। এখন প্রায় প্রতিদিনই নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বাড়ছে, সাথে বাড়ছে সুস্থতার সংখ্যা । বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রায় ১৬ কোটি মানুষের জনবহুল দেশে এই পরীক্ষা পর্যাপ্ত নয়। লকডাউন করে যারা সফলতা পেয়েছে তাদের তুলনায় আমাদের প্রতিটি পদক্ষেপ যেন ক্ষুদ্র এক প্রয়াস মাত্র।


বৈশ্বিক মহামারীর পরিস্থিতির মধ্যেও কৃষি খাতে দুর্ব গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এশিয়ার গণ্ডি পার করে বিশ্বে সবজি উৎপাদনে জনবহুল বাংলাদেশ এখন তৃতীয় অবস্থানে। কেবল সবজি-ই নয় ধান উৎপাদনেও বিশ্বে আয়তনের দিক থেকে অনেক পেছনে থাকা বাংলাদেশের অবস্থান চতুর্থ, আমে সপ্তম ও আলুতে অষ্টম।

সকল কিছুর মূলে সরকারের নানামুখী উদ্যোগের ফলে একটু একটু করে এগিয়ে যাচ্ছে কৃষি খাত। বিশ্ব পরিমণ্ডলে যা উজ্জ্বল নক্ষত্র হয়ে জ্বলছে।

 

কৃষি  খাতে শিক্ষিত তরুণরা এখন যোগ দিচ্ছেন। ফলে কৃষি খাত আগের তুলনায় অনেক এগিয়ে যাচ্ছে। এ ছাড়া বর্তমান সরকার নানা ধরনের সহায়তা করায় কৃষকরা ফসল উৎপাদনে আগ্রহী হয়ে উঠেছে। যার প্রভার পড়ছে উৎপাদনে। এই উৎপাদন বিশ্ব পরিমণ্ডলে দেশের ভাবমূর্তিকে উজ্জ্বল করেছে। কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে সরকার নানাভাবে প্রণোদনা দিচ্ছে।এবং সরকার কৃষি জামানত বিহীন কৃষি ঋন দিচ্ছে অল্প সুদে।

 

কৃষক ঋণ পাচ্ছে, সারের দাম কমানো হয়েছে। তবে এই প্রণোদনা বাড়ানো দরকার। কৃষি শ্রমিক সংকট মোকাবেলায় আধুনিক যন্ত্রপাতির বিকল্প নেই। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়েছে সরকার।

 

কৃষি মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, দেশে মোট দেশজ উৎপাদন তথা জিডিপিতে কৃষি খাতের অবদান এখন ১৪ দশমিক ২৩ শতাংশ। কৃষির উন্নয়ন ও কৃষকের কল্যাণ সর্বোচ্চ বিবেচনায় নিয়ে রূপকল্প-২০২১ এবং রূপকল্প-২০৪১ গ্রহণ করা হয়েছে। এর আলোকে জাতীয় কৃৃষিনীতি সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা, টেকসই উন্নয়ন ডেল্টাপ্লান-২১০০সহ বেশ কিছু পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নানা পদক্ষেপের ফলে কৃষি এখন বাণিজ্যিক কৃষিতে পরিণত হয়েছে। এর ফলে খাদ্যশস্য উৎপাদনে বিশ্বে এ দেশের অবস্থান এখন ১০ম।

 

এ ছাড়া আরও দুই কোটি আট লাখের বেশি কৃষককে কৃষি উপকরণ সহায়তা কার্ড দেয়া হয়েছে। ডাল, তেলবীজ, মসলা ও ভুট্টাসহ ২৪ ধরনের ফসল চাষে কৃষকদের ৪ শতাংশ হারে ঋণ দেয়া হয়েছে। কৃষককে উৎসাহিত করতে সারের মূল্য কমানো হয়েছে চার দফা।

শত প্রতিকূলতার মাঝে বাংলাদেশের কৃষি খাত সাফল্যের চূড়ায়।করোনায় সকল ক্ষেত্রে স্থবিরতা থাকলেও কৃষক পণ্য উৎপাদন করছে প্রয়োজনেরও বেশি।

 

শিক্ষার্থী লেখক ;মো ফাহাদ বিন সাঈদ,
ফিল্ম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগ ,
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়।