ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৬ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১০ ১৪২৮

ব্রেকিং:
দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন ভার্সন`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের অনুরোধ করা হল। নিয়োগ পেতে কেউ অসদুপায়ে আর্থিক লেন-দেন করে থাকলে তার জন্য কর্তৃপক্ষ (প্রকাশক ও সম্পাদক) দায়ী থাকবেনা।
সর্বশেষ:
স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে ত্যাগীদের নাম পাঠানোর নির্দেশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ডিও লেটার জালিয়াতি, সতর্কতা জারি সাহেদকে জামিন দিতে হাইকোর্টের রুল আফগানিস্তান সীমান্তে আগ্রাসনের বিরুদ্ধে তালেবানের হুঁশিয়ারি সুদানের প্রধানমন্ত্রী আব্দাল্লাহ হামদক গৃহবন্দি বাংলাদেশে কেউ সংখ্যালঘু নয়: তথ্যমন্ত্রী

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ফিল্মী স্টাইলে স্কুলছাত্রী অপহরণকারী জসীম এখন পুলিশী কব্জায়

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ১৩ অক্টোবর ২০২১  

ছবি- প্রতিদিনের চিত্র।

ছবি- প্রতিদিনের চিত্র।


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্কুল থেকে বাসায় ফেরার পথে ফিল্মী স্টাইলে অপহরণ হয় স্কুলছাত্রী। চাঞ্চল্য সৃষ্টিকারী সেই অপহরণ ঘটনার মূলহোতা জসীম এখন পুলিশী কব্জায়। রাজধানী ঢাকার বাড্ডা এলাকা থেকে র‍্যাব সদস্যরা তাকে গ্রেপ্তারের পর পুলিশে সোপর্দ করে। তাকে রিমাণ্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে আবেদন করেছে পুলিশ।

 

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) রাতে র‌্যাবের সদস্যরা গ্রেপ্তারকৃত জসীমকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন। এর আগে সোমবার রাতে র‌্যাব সদস্যরা রাজধানীর বাড্ডা এলাকা থেকে জসিম উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে। সে সদর উপজেলার মজলিশপুর ইউনিয়নের মৈন্দ গ্রামের ধন মিয়ার ছেলে।

 

পুলিশ জানায়, প্রবাসফেরত জসিম দীর্ঘদিন ধরেই মেয়েটিকে স্কুলে ও কোচিংয়ে যাতায়াতের পথে উত্ত্যক্ত করে আসছিলো। জসীম তাকে প্রেমের প্রস্তাবও দেয়। কিন্তু এতে রাজি না হওয়ায় পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী শনিবার দুপুরে স্কুল শেষে বাসায় যাওয়ার পথে জসিম ও তার সহযোগী ইরফান এবং আশিক ওই স্কুলছাত্রীকে জেলা শহরের মধ্যপাড়া এলাকা থেকে টানাহ্যাঁচড়া করে প্রাইভেটকারে তুলে নিয়ে চম্পট দেয়। ওই সময়কার একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। পরে ঘটনাটি গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়াসহ এলাকায় জানাজানি হওয়ায় অপহরণকারী জসিম  ওই স্কুলছাত্রীকে রাতে শহরতলীর সুহিলপুর এলাকায় ছেড়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে সে রাজধানীর বাড্ডা এলাকায় তার এক স্বজনের বাসায় আত্মগোপন করে। অপহরণে ব্যবহৃত প্রাইভেটকারটি জসিম তার এক আত্মীয়ের কাছ থেকে ভাড়া নিয়েছিল। ঘটনার পর পুলিশ জসীমের ভাই কাউছার মিয়াকে আটক করে। এদিকে এই ঘটনায় স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলার পর ফিল্মী স্টাইলে স্কুলছাত্রীকে অপহরণকারী জসীম উদ্দিনকে গ্রেপ্তারে মাঠে নামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। শেষতক র‍্যাব সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাতে রাজধানী বাড্ডা এলাকার আত্মীয়র বাসা থেকে জসীম উদ্দিনকে গ্রপ্তার করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি) মোহাম্মদ এমরানুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, 'গ্রেপ্তারকৃত জসীমকে রিমাণ্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে আবেদন করা হয়েছে। অপহরণে জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে। এ পর্যন্ত ঘটনার মূলহোতা জসীম উদ্দিন ও তার ভাই কাউসার মিয়া গ্রেপ্তার হয়েছে। অপহরণ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।'

এই বিভাগের আরো খবর