Berger Paint

ঢাকা, রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০,   চৈত্র ১৫ ১৪২৬

ব্রেকিং:
দেশে নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হননি: আইইডিসিআর
Corona Virus Hotline
সর্বশেষ:
আজ সাধারণ ছুটির চতুর্থ দিন চলছে টিভিতে `আমার ঘরে আমার ক্লাস` শুরু হয়েছে সকাল ৯টায় করোনা ভাইরাসে ইতালিতে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়াল বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়িয়েছে আজ থেকে ইউরোপে ঘড়ির কাঁটা ১ ঘণ্টা এগিয়ে যাচ্ছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু, তিন চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা

এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ১৪ নভেম্বর ২০১৯  

পঠিত: ১৫৪৫

মৃত্যুর পরও মুখে অক্সিজেনের মাস্ক লাগিয়ে প্রসুতি নওশীন আহমেদ দিয়াকে(২৯) ঢাকায় নিয়ে যেতে বলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার একটি প্রাইভেট হাসপাতালের চিকিৎসকরা। সেখানে যাওয়ার পর জানানো হয় কয়েকঘন্টা আগেই প্রসূতি দিয়া মারা গেছেন! 'ভুল চিকিৎসা-ভুল ওষুধ প্রয়োগে প্রসূতি দিয়াকে হত্যা করা হয়'- এই অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ওই প্রাইভেট হাসপাতালের তিন চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

বুধবার অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন দিয়ার পিতা শিহাব আহম্মদ গেন্দু।  আসামীরা হচ্ছেন চিকিৎসক ডিউক চৌধুরী,অরুনেস্বর পাল অভি ও মো. শাহাদাত হোসেন রাসেল।  তাদের মধ্যে ডিউক চৌধুরী শহরের মুন্সেফপাড়াস্থ খ্রীষ্টিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালের মালিক। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে নিয়মিত মামলা হিসেবে রেকর্ড করতে সদর মডেল থানার ওসিকে নির্দেশ দেন। এদিকে আদালতের নির্দেশেই আজ শুক্রবার সকালে দিয়ার লাশ ময়না তদন্তের জন্যে কবর থেকে উত্তোলন করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।  

মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, শহরের মুন্সেফপাড়া ক্রিসেন্ট কিন্ডার গার্টেন স্কুলের সহকারি শিক্ষিকা নওশীন আহাম্মদ দিয়া গর্ভবতী অবস্থায় গত ৩০ অক্টোবর খ্রীষ্টিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি হলে সেখানে তার আগাম ডেলিভারীর ব্যবস্থা করা হয়।  সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে কন্যা সন্তান ভূমিষ্ঠ করানো হয়। কিন্তু পুরোপুরি সুস্থ হওয়ার আগেই তাকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দিয়ে হাসপাতালের পাশ্ববর্তী স্বামীর বাড়িতে পাঠানো হয়।  ৪ নভেম্বর ভোরে দিয়ার প্রচন্ড মাথা ব্যথা শুরু হলে তাৎক্ষনিক তাকে আবার খ্রীষ্ট্রিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালে নেয়া হলে হাসপাতালের পরিচালক ডাক্তার ডিউক চৌধুরী, অরুনেশ্বর পাল অভি ও মো. শাহাদাত হোসেন রাসেল রোগিনীর মৃত্যু হতে পারে জেনেও দিয়াকে ভুল চিকিৎসা-ভুল ইনজেকশন এমনকি ভুল ওষুধ প্রয়োগ করেন।  এরপরই দিয়া অজ্ঞান হয়ে পড়লে তা গোপন করে চিকিৎসার নামে সময় ক্ষেপন করতে থাকেন।  এসময় দিয়ার স্বজনেরা মেডিসিনের অভিজ্ঞ চিকিৎসককে কল দিতে বললেও  ডিউক চৌধুরী এবং অন্যান্য ডাক্তাররা চুপ থাকেন। একপর্যায়ে দিয়ার মৃত্যু হলেও তার মুখে অক্সিজেনের মুখোশ লাগিয়ে দুপুর একটার দিকে দ্রুত তাকে ঢাকা নিয়ে যেতে বলেন।  দিয়ার বাবা অ্যাম্বুলেন্সে করে মেয়েকে নিয়ে বিকেল সাড়ে চারটায় ঢাকা ল্যাব এইড হাসপাতালে পৌছলে সেখানে ডাক্তাররা জানান, 'কয়েক ঘন্টা আগেই দিয়ার মৃত্যু হয়েছে'।  এদিকে ডাক্তার ডিউক চৌধুরী ও তার হাসপাতালের বিরুদ্ধে রয়েছে আরো নানা অভিযোগ।  তাদের ভুল চিকিৎসার খেসারত দিতে হলো শিক্ষিকা দিয়াকেও। পাঁচ বছর ১০ মাস বয়েসী একটি পুত্র সন্তান ও চার দিনের নবজাতক রেখে মারা যান দিয়া। তার স্বামী শহরের মুন্সেফপাড়ার সাইফুল ইসলাম তিলক ও শ্বশুর শহরের প্রতিষ্ঠিত ঠিকাদার এবিএম তৈমুর।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি) মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন বিষয়ের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, 'বিষয়টি অামরা যথাযথ গুরুত্বের সাথে তদন্ত করছি। আজ শুক্রবার কবর থেকে প্রসূতি দিয়ার লাশ উত্তোলন করা হবে। '

এই বিভাগের আরো খবর