Berger Paint

ঢাকা, সোমবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ১৩ ১৪২৭

ব্রেকিং:
১৫ বছরের মধ্যে ১০ বছরই আয়কর দেননি ট্রাম্প! চির নিদ্রায় শায়িত অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম অস্ত্র মামলায় সাহেদ করিমের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ২৪ বলে ৮২, ৯ বলে ৭ ছক্কা, নতুন রেকর্ড আইপিএলে এমসি কলেজে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ: ছাত্রলীগ নেতা রাজনও গ্রেফতার এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ : রনি ও রবিউল গ্রেফতার ৭৪-এ পা রাখলেন শেখ হাসিনা
সর্বশেষ:
সৌদিতে শিডিউল ফ্লাইটের অনুমতি পেয়েছে বিমান ড. কামাল ও আসিফ নজরুল ঢাবি এলাকায় অবা‌ঞ্ছিত : সন‌জিত সাহেদের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলার রায় আজ কাশ্মীর সীমান্তে পাক-ভারত উত্তেজনা, এক সেনা নিহত

আইসিডি শুল্ক স্টেশনে সিএন্ডএফদের কর্ম বিরতি

মো: সোহেল রানা, আইসিডি কাস্টমস প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০  

পঠিত: ৭৬
ছিব- দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র

ছিব- দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র

 

ঢাকার কমলাপুরস্ত আইসিডি কাস্টমস হাউজের শুল্ক গোয়েন্দা ও কাস্টমস কর্তৃপক্ষের চরম স্বেচ্ছাচারিতা এবং হয়রানির কারণ দেখিয়ে আইসিডির অভ্যন্তরীন শুল্ক স্টেশনের সব ধরণের পণ্য খালাস এবং রপ্তানী কার্যক্রম বন্ধ রেখে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির কর্মসূচি দিয়েছে সিএন্ডএফ এজেন্টদের সংগঠন 'ঢাকা কাস্টমস এজেন্ট এসোসিয়েশন।

 

কর্মসূচির আজ দ্বিতীয় দিন। রোববার ( ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ইং) থেকে এই কর্মসূচী পালন করছে কর্মরত সিএন্ডএফ এজেন্টরা।

 

সিএন্ডএফ এজেন্টদের অভিযোগ, বেশ কয়েক মাস ধরে আমদানী পণ্যের শুল্কায়ন শেষে যাবতীয় শুল্ককর পরিশোধের পর পণ্য ডেলিভারির পূর্ব মূহুর্তে বিনা কারণে মিথ্যা অভিযোগ এনে শুল্ক গোয়েন্দা Bill of Entry লক করে পণ্য খালাস বন্ধ রাখার প্রবনতা অব্যাহত রাখায়। এবং এই শুল্ককর পরিশোধিত পণ্য পুনরায় কায়িক পরীক্ষা করতে বাধ্য করা। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, পুনকায়িক পরীক্ষায় 'আমদানী পণ্যের প্যাকিংলিস্ট, কমার্শিয়াল ইনভয়েস ও বিএল-এ ঘোষণা অনুযায়ী পণ্য সঠিক পাওয়ার পরেও বিভিন্ন জটিলতা সৃষ্টি করে পণ্য খালাসে অনুমতি মিলে ১০ থেকে ১৫ দিন। এতে করে আমদানীকারকের গুণতে হয় বাড়তি পোর্ট ও শিপিং ডেমারেজ। যার ফলশ্রুতিতে আমদানী ও রপ্তানীকারকরা দিনে দিনে এই বন্দর ব্যবহারে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন।

ঢাকার সিএন্ডএফ এজন্টদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন 'ঢাকা কাস্টমস এজেন্ট এসোসিয়েশন' এর সিনিয়র সভাপতি মো: লোকমান হাকিম বলেন, ''আইসিডি শুল্ক স্টেশনের কমিশনার, শুল্ক গোয়েন্দা এবং অন্যান্য কর্মকর্তাদের সমন্বয়হীনতার কারণে সিএন্ডএফ এজেন্ট এবং আমদানীকারকরা বিপদের সম্মূখীন হচ্ছে। পণ্য কায়িক পরীক্ষা যেভাবে করছে, 'যা কায়িক পরীক্ষার রুলস এন্ড রেগুলেশন মধ্যে পড়েনা।'' শুল্ক গোয়েন্দা কর্তৃক আটককৃত পণ্য চালানের শুল্কায়ন শেষে NOC প্রদানের ক্ষেত্রে দীর্ঘসূত্রিতা ও অসদাচরণ বন্ধ করার অবিলম্বে বন্ধ করার হুশিয়ারী দেন তিনি।

 

'ঢাকা কাস্টমস এজেন্ট এসোসিয়েশন এর সাধারণ সম্পাদক মো: ফারুক আলম বলেন, ''আইসিডিতে শুল্ক গোয়েন্দার ডেপুটি ডাইরেক্টর বসেন, তাঁর সাথে আমি এবং আমাদের সংগঠনের নেতৃবৃন্দ দেখা করে সৃষ্ট সমস্যার সমাধান চেয়ে কথা বলেছিলাম। তিনি বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করেননি বরং অনেকের সাথে অসৌজন্য মূলক আচরন করেছেন। এমনকি সিএন্ডএফ লাইসেন্স বাতিল এবং জেল জরিমানার ভয় দেখিয়ে হুমকিও প্রদান করেছেন বলে অনেক প্রতিনিধি আমার কাছে অভিযোগ করেছেন। H.S. Code ও একই শুল্কহারের Common বর্ননার পণ্যকেও ভিন্নভাবে শ্রেনীবিন্যাস করে মিথ্যা ঘোষণার অন্তর্ভূক্ত করার অপচেষ্টা চালানো হয় যা কাস্টমস আইনের পরিপন্থি। কায়িক পরীক্ষায় ২ জন ARO ও ২ জন RO এর নাম দেওয়া রীতি বন্ধ করার কথা বলেন তিনি।

 

মো: বজলুর রহমান রানা বলেন, ''কাস্টমস, শুল্কগোয়েন্দা এবং প্রিভেন্টিভ এর কর্মকর্তারা সিএন্ডএফ এজেন্ট এবং সিএন্ডএফ প্রতিনিধিদের মূল্যয়ন করতে চাইনা। বিশেষ করে সিএন্ডএফ এজেন্টদের প্রতিনিধিদের সাথে যেন-তেন ব্যবহার করেন তাঁরা। তিনি পণ্য শুল্কায়নের বিষয়ে বলেন, একটি পণ্যের মোড়ক বার বার খুলে পরিমাপ করা হলে এই পণ্য বাজারে বিক্রয়ের অনুপযোগী হয়ে যায়। এইভাবে প্রতিদিন কন্টিনার ভর্তি অসংখ্য পণ্য নস্ত করেন দায়িত্বরত কাস্টমস, শুল্কগোয়েন্দা এবং প্রিভেন্টিভ কর্মকর্তারা। Export এর ক্ষেত্রে Bonded প্রতিষ্ঠানের শুল্কবিহীন পন্যের Weight মাপার নামে বিভিন্ন রকম হয়রানি বন্ধ করতে হবে। EXP বাতিলের বিষয়টি দ্রুত নিষ্পত্তি করার কথা বলেন তিনি।

 

সংগঠনের অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা বলেন, কায়িক পরীক্ষা সন্ধা ৬.০০টার মধ্যে শেষ করতে হবে। সঠিক পন্য চালানের ক্ষেত্রে কায়িক পরীক্ষার প্রতিবেদন সাথে সাথেই দেওয়ার নিয়ম করার কথা বলেন তারা। কায়িক পরীক্ষান্তে মালামাল সঠিক পাওয়া গেলেও স্কেলে ওজন দেওয়া হয়। ফলে সময় লাগে ও ব্যয়ভার বাড়ে। ওজন স্কেলের ত্রুটির কারনে মালামালের ওজনে ৫০০ থেকে ৭০০ কেজির তারতম্য ঘটে। কায়িক পরীক্ষায় কার্টুন সংখ্যা ও কার্টুনের ওজনে মিল থাকলেও ওজন স্কেলে দেয়া হয়। এ সকল সমস্যা বন্ধ করার আহ্বান করেন বক্তারা।


তথ্যের সত্যতা যাচাই করতে 'দৈনিক প্রতিদিনের চিত্রে'র প্রতিনিধি আইসিডি শুল্ক স্টেশনের কমিশনার মোবারা খানমের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি এই বিষয়ে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

 

অপর দিকে শুল্ক গোয়েন্দার মহাপরিচালকের অসুস্থা থাকায় তাঁর সাথেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

এবিষয়ে এনবিআর সাথে যোগাযোগ করা হলেও কোন কর্মকর্তা কথা বলতে রাজি হননি।

 

ঢাকা কাস্টমস এজেন্ট এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ এবং সিএন্ডএফ এজেন্ট প্রতিনিধিরা অবিলম্বে সকল হয়রানি বন্ধসহ সমস্যা-সমাধান করা না হলে লাগাতার কর্মবিরতির কর্মসূচি ঘোষণাসহ পর্যায়ক্রেমে দেশের সকল শুল্ক স্টেশনের কঠিন আন্দোলন গড়ে তোলার হুশিয়ারী প্রদান করেন।