Berger Paint

ঢাকা, রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০,   চৈত্র ১৫ ১৪২৬

ব্রেকিং:
দেশে নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হননি: আইইডিসিআর
Corona Virus Hotline
সর্বশেষ:
আজ সাধারণ ছুটির চতুর্থ দিন চলছে টিভিতে `আমার ঘরে আমার ক্লাস` শুরু হয়েছে সকাল ৯টায় করোনা ভাইরাসে ইতালিতে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়াল বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়িয়েছে আজ থেকে ইউরোপে ঘড়ির কাঁটা ১ ঘণ্টা এগিয়ে যাচ্ছে

ভালোবাসি প্রিয় মাইক্রোফোন - মায়মুনা ফেরদৌস মম

প্রকাশিত: ১৯ অক্টোবর ২০১৯  

পঠিত: ১৪৬৪
মায়মুনা ফেরদৌস মম

মায়মুনা ফেরদৌস মম

× শুরু যাত্রাটা শুনতে চাই

 ভিকারুন্নেসা নূন স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্রী ছিলাম আমি । মূলত  অভিনয়ে আসাটাই  ভিকারুন্নেসা নূন স্কুল এন্ড কলেজে   থেকে। তিনি বলেন ভিকারুন্নেসার অনেকগুলো শাখা আছে। প্রথমে ইন্টার উইং কম্পিটিশনের মাধ্যমে অভিনয়ে আসা। পরবর্তীতে জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগীতায় অংশ নিয়ে পুরস্কার পাই। স্কুলের টিচারদের আমি খুব মিস করি। আমি কখনই আহামরি লেভেলের ভালো স্টুডেন্ট ছিলাম না কিন্তু স্কুলের যে কোন এক্সট্রাকারিকুলার এক্টিভিটিসে মায়মুনা ফেরদৌস মম নামটা সবার আগে থাকতো।

× মিডিয়াতে আসার জন্য পরিবারের সাপোর্ট কেমন ছিলো ?
মম - আম্মুর এক্সপেক্টশন অনেক কিছুই ছিল। মেয়ে পাইলট হবে, মেয়ে এ্যাডভোকেট হবে, মেয়ে ডাক্তার হবে। একেক সময়ে একেকটা মনে হয়েছিল। কারণ আমি তো সবার ছোট তাই মা’র যখন যেটা মনে ভালো লাগতো সেটাই আমাকে বানাতে চাইতো। আম্মু কখনও এটা ভাবেনি যে আমি ডিরেক্ট মিডিয়াতে জড়িয়ে যাবো। তবে আম্মুর মাথায় চিল যে আমি কোন সুন্দরী প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করবো। এটা আম্মুর প্রচণ্ড পরিমাণে ইচ্ছা ছিল।মূলত তো আমার অনুপ্রেরনা বলেন সাপোর্ট বলেন সব আমার মা আর বোন ।

× আরজে থেকে অভিনয় কিভাবে ? শুরুতে আরজে হবার গল্প শুনতে চাই

মম - আমার শুরুটা আরজে হান্টের মাধ্যমে, এই হান্ট ছিল পিপলস রেডিও তত্ববধানে। ওরা একটা আরজে হান্ট করেছিল। আমি তখন ইউআইইউ’র স্টুডেন্ট ছিলাম। আমি পার্টিসিপেট করেছিলাম এবং সেখান থেকেই এখন আরজে মম। রেডিও ছিলো পিপলস রেডিও 91,6 এফ এম।

× আরজে থেকে অভিনয় কিভাবে শুরু হলো জার্নিটা ?

মম - কারখানা প্রোডাকশনের একটি অভিসি দিয়ে ভিজ্যুয়াল মিডিয়ায় প্রথম আসা। শারাফ আহমেদ জীবন একদিন আমাকে বলে যে কাজটা কি করবা? খুব সুইট একটা গল্প থাকে ছেলে আর মা’র। শাওনের মাধ্যমে ভাইয়ার সাথে পরিচয় হয়েছিল। শাওন আমাকে জানিয়েছিল প্রথম। এভাবেই ভিজ্যুয়াল মিডিয়ায় আসা।

× নিজেকে কি  ভাবতে ভালো লাগে আরজে না অভিনেত্রী ?

মম - আসলে সত্যি বলতে আমার ভালোলাগার জায়গা দুইটাই , আর প্রিয় জায়গা অনএয়ার রুম । আর ভালোবাসি প্রিয় মাইক্রোফোন
 

× প্রথম কোন ভালো কাজের গল্প শুনতে চাই ?

মম - প্রথম কাজ মোস্তফা সারোয়ার ফারুকী ভাইয়ের হাত ধরে। রাধুনী মাংশের মসলার একটার টিভিসি ছিল সেটা। জীবন ভাইয়ের সেটে কাজ করার সময়ই ফারুকী ভাইয়ের এক এডি কিবরিয়া ভাই আমাকে কল দিয়ে বলে শর্ট ফিল্মের একটা চরিত্রে তারা আমাকে পিক করে। ওই শর্ট ফিল্ম স্যুট করতে গেলে ওই সেটেই আমাকে রাধুনীর জন্য সিলেক্ট করা হয়। ফার্স্ট টেকেই শর্টটা ওকে ছিল। ফারুকী ভাই সুপার্ভ বলেছিল। সেদিন আমি অনেক খুশি ছিলাম।


× প্রেম অথবা বিয়ে ?

মম - এই বিষয়টাতে আমি একটু কনফিউজড। কাজের কারণে হোক বা নিজের কারণে হোক প্রেম থেকে দূরে আছি। অনস্ক্রিনে প্রেম ভালোই যাচ্ছে কো-আর্টিস্টদের সাথে। আমি আমার সব কোআর্টিস্টের প্রেমেই পড়ে যাই, প্রেমের কোন দৃশ্য থাকলে।আর বিয়ে ঐটা উপর আল্লাহর হাতে

× মিডিয়াতে কার অভিনয়ে আপনি অনুপ্রাণিত ?

মম - সুবর্ণা মোস্তফা, অপি করিম।

× পছন্দের  পরিচালক
মম - হুমায়ূন আহমেদ স্যার, পরমব্রত চট্টােপাধ্যায়।

× আপনাকে বড় পর্দায় কবে দেখবো ?

মম - একটার কাজ শেষ, আরেকটার কাজ এখনও চলছে। কাজ শেষ হয়েছে ‘আজব কারখানা’ চলচ্চিত্রের। আগাম বছর মুভিটা রিলিজ পাবে আশা করছি। সেখানে আমি পরব্রতর ওয়াইফের ক্যারেক্টোরটা করেছি। সেখানে দোয়েল আপু ছিলেন, ইমি আপু ছিলেন। আর সেকেন্ড যে চলচ্চিত্রটা করছি তার ডিরেক্টর নিশিথ সূর্য, নাম ‘পায়রার চিঠি’। হাফ স্যুট করেছি পটুয়াখালিতে।

 

 

 

এই বিভাগের আরো খবর