ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ মে ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪২৮

ব্রেকিং:
ইসরায়েলে ৩ হাজার রকেট ছুড়ল হামাস pmশেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ
সর্বশেষ:
ভারতে একদিনে আরও ৪ হাজারের বেশি মৃত্যু গাজায় ইসরায়েলি হামলায় আরও ১০ শিশুসহ নিহত ৪২

মির্জাপুরে ঝুলন্ত অবস্থায় গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, পরিবারের দাবি হত্যা!

শামীম মিয়া, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২০ এপ্রিল ২০২১  

ছবি- প্রতিদিনের চিত্র।

ছবি- প্রতিদিনের চিত্র।


টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ঝুলন্ত অবস্থায় এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার রাত ৮টার দিকে নিহতের শ্বশুড়বাড়ি উপজেলার বাঁশতৈল ইউনিয়নের দক্ষিণ পেকুয়া গ্রামের জোড়ান মার্কেট এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। কিন্তু নিহতের পরিবারের দাবি তাকে পরিকল্পিতভাবে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। এ ঘটনার আগের দিন বাবার বাড়ি থেকে শ্বশুড়বাড়ি যায় সাদিয়া।

 

নিহত পেকুয়া গ্রামের মো. ওয়াজেদ মিয়ার স্ত্রী ও একই উপজেলার আজগানা ইউনিয়নের বেলতৈল গ্রামের মো. সেলিম মিয়ার মেয়ে সাদিয়া আক্তার সেতু (২২)।

 

নিহতের পরিবার সুত্রে জানা যায়, গত আড়াই বছর পূর্বে পেকুয়া গ্রামের রফিক মিয়ার ছেলে (দক্ষিণ আফ্রিকা প্রবাসী) ওয়াজেদ মিয়ার সাথে সাদিয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের ৩ মাস পরই সে প্রবাসে চলে যায়। তারপর থেকে সাদিয়া শ্বশুড় বাড়িতেই থাকতো। কিছুদিন পর থেকেই সাদিয়ার উপর পাশবিক নির্যাতন শুরু করে তার শ্বশুড়বাড়ির লোকজন। একপর্যায়ে ওয়াজেদের বড় বোনের স্বামী জুয়েল মিয়া তাকে বিভিন্নভাবে কুপ্রস্তাব দিতে থাকে। পরে বিষয়টি তার স্বামীকে জানানো হলে সে জুয়েলকে এড়িয়ে চলতে বলে। পরবর্তীতে সে ধৈর্য্য ধরতে না পেরে পুরো বিষয়টি তার বাবা ও মামা মিনহাজ মিয়াকে জানান। তারা সাদিয়ার শ্বশুড়বাড়ি গিয়ে বিষয়টি নিয়ে দুইবার পারিবারিকভাবেও বসেছে। পারিবারিকভাবে বসা হলেও সেখানে জানানো হয় জুয়েল সাদিয়ার সাথে হাসিঠাট্টা করেছে মাত্র!

 

নিহতের বাবা সেলিম মিয়া জানান, আমার মেয়ে আমার সাথে সব শেয়ার করতো। আমার মেয়ে আত্মহত্যা করতে পারেনা। শ্বশুড়বাড়ির লোকজনকে দাবি করা দুই লাখ টাকা দিতে না পারায় আমার মেয়েকে শারিরীক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করা হতো, না খাইয়ে রাখতো। আমার মেয়ের ননাসের স্বামী জুয়েল ওকে প্রতিনিয়তই কুপ্রস্তাব দিতো। আমার ধারণা আমার মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে।

 

মির্জাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) মো. আজিম খান বলেন, সংবাদ পেয়ে রাতে ঘটনাস্থল থেকে সাদিয়ার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছি। সে সময় তার এক হাত পিছনে ওড়না দিয়ে পেচানো অবস্থায় ছিলো। ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মোবাইল উদ্ধার করা হয়েছে তবে সিম ও মেমোরিকার্ড পাওয়া যায়নি।

 

মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রিজাউল হক বলেন, আমরা ধারণা করছি এটি আত্মহত্যার ঘটনা হতে পারে। লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইল পাঠানো হয়েছে। তদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
 

এই বিভাগের আরো খবর