ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২,   আষাঢ় ১১ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
পদ্মায় স্বপ্নপূরণের ক্ষণগণনা
১৮দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
০৬মিনিট
:
১০সেকেন্ড
সর্বশেষ:
সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানালেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর মধ্য দিয়ে দেশ নতুন যুগে প্রবেশ করেছে: শিক্ষামন্ত্রী মাথা নোয়াইনি, কখনো নোয়াবো না: প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থলে লাখো মানুষের ঢল দেশে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৩ পদ্মা সেতুতে টোল দিলেন প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করা হলো স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই, বললেন প্রধানমন্ত্রী

যে কারণে সালমান খানকে হত্যার হুমকি

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১ জুন ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 
লিউড ভাইজান সালমান খান ও তার বাবা সেলিম খানকে উদ্দেশ করে গ্যাংস্টার বাহিনী একটি চিঠি দিয়েছে। ৫ জুন ভারতের মুম্বাইয়ের বান্দ্রা ব্যান্ডস্ট্যান্ড এলাকায় ফেলে যাওয়া ওই উড়ো চিঠি উদ্ধার করেছে সেলিম খানের নিরাপত্তারক্ষীরা। চিঠির উৎস খুঁজতে মুম্বাই পুলিশের সন্দেহের তালিকায় ছিল লরেন্স বিষ্ণই গ্যাং। ইতোমধ্যে দিল্লি পুলিশ জেরা করে বিষ্ণইকে।

 

এদিকে বলিউড সুপারস্টার সালমান খানকে হত্যার হুমকি এবং হত্যাচেষ্টা নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে। ভারতের টাইমস নেটওয়ার্ক এ খবর জানিয়েছে। বর্তমানে চলমান সিধু মুসওয়ালা হত্যাকাণ্ড তদন্তকালেই বলিউড ভাইজানকে হত্যা প্রচেষ্টার কথা পাওয়া যায়।

 

সিধু মুসওয়ালা হত্যাকাণ্ড তদন্তকারী এক পুলিশ কর্মকর্তা আকস্মিকভাবেই এ ঘটনার কথা জানতে পারেন। এই তদন্তকারীর তথ্যানুযায়ী একজন বন্দুকধারীকে নিয়োগ করা হয় সালমান খানকে হত্যা করার জন্য, কিন্তু অভিনেতা ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান।

 

এই কর্মকর্তার দেয়া তথ্যে সিধু মুসওয়ালা হত্যাকাণ্ডের সন্দেহভাজন আসামি লরেন্স বিষ্ণয় একজন বন্দুকধারীকে (শার্প শুটার) নিয়োগ করে সালমান খানকে হত্যার জন্য। হকিস্টিক রাখার কেসে একটি কম বোরের আগ্নেয়াস্ত্র দেয়া হয় তাকে। তাকে নির্দেশ দেয়া হয় সালমানের বাড়ির বাইরে অবস্থান নেয়ার জন্য। কিন্তু ভাগ্যক্রমে রক্ষা পান সালমান।


লরেন্স বিষ্ণয় আর তার সহযোগীরা সালমানের গতিবিধি যাচাই করে জানতে পারে, তিনি সকালে সাইক্লিং করেন। পরিকল্পনা করা হয়, সে সময়ই তাকে গুলি করে হত্যা করা হবে। কিন্তু নির্দিষ্ট সেই দিন সকালে ঘর থেকে বের হওয়ার সময় একজন পুলিশ সহযোগী দেয়া হয় সালমানকে। ফলে অল্পের জন্য বেঁচে যান তিনি।

 

প্রশ্ন হলো, কী কারণে সালমান খানকে হত্যা করতে চাইছে এই গ্যাংস্টার লরেন্স? ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, লরেন্স বর্তমানে কারাগারে বন্দি। সেই অবস্থায় থেকেই সালমান খানকে হত্যার ছক আঁকেন তিনি। গত বুধবার মুম্বাই ক্রাইম ব্রাঞ্চের একটি বিশেষ দল দিল্লিতে গিয়ে লরেন্সের গ্যাংকে কয়েক ঘণ্টা জেরা করে। সেই জেরায় উঠে আসে পরিকল্পনার কথা।

 

লরেন্সের দলের সদস্য বিক্রমজিত সিং বরাড়কে দেয়া হয় হুমকি দেয়ার দায়িত্ব। বিক্রমের নির্দেশেই হুমকি দেয়া হয় সালমানকে। তবে বিক্রম এখন কানাডায়। সেখান থেকে লরেন্সের আদেশ গ্যাংয়ের নিচের সদস্যদের সরবরাহ করছেন।


বিক্রমের নির্দেশে লরেন্স গ্যাংয়ের তিন সদস্য রাজস্থানের জালোর থেকে মুম্বাই আসেন হুমকির চিঠি দিতে। মুম্বাইয়ে রয়েছে তাদের গ্যাংয়ের আরেক সদস্য সৌরভ মহাকাল। তাকেও জেরা করেছে পুলিশ। জেরায় মহাকাল জানান, শুধু তাদের গ্যাংয়ের প্রচারের জন্যই সালমান খানের মতো তারকাকে খুনের হুমকি দিয়েছেন তারা।

 

সালমানকে খুনের হুমকির চিঠি যে ব্যক্তি দিয়েছে, তাকেও ইতোমধ্যে শনাক্ত করে ফেলেছে মুম্বাই পুলিশ। শিগগিরই এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানা গেছে।

 

এদিকে সালমানকে হত্যার হুমকির ঘটনায় বান্দ্রা পুলিশ অজ্ঞাতপরিচয়দের নামে এফআইআর করেছে। পুলিশ বর্তমানে সালমানকে বিশেষ নিরাপত্তায় রেখেছে। শুধু সালমানকে নয়, তার গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টের চারপাশে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। মুম্বাই পুলিশ এখন পর্যন্ত ২০০টিরও বেশি সিসিটিভি ফুটেজ বাজেয়াপ্ত করেছে। ক্রাইম ব্রাঞ্চ ও স্থানীয় পুলিশসহ মোট ১০টি দল সালমান মামলার তদন্তে কাজ করছে।

এই বিভাগের আরো খবর