ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২,   আষাঢ় ১১ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
পদ্মায় স্বপ্নপূরণের ক্ষণগণনা
১৮দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
০৬মিনিট
:
১০সেকেন্ড
সর্বশেষ:
সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানালেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর মধ্য দিয়ে দেশ নতুন যুগে প্রবেশ করেছে: শিক্ষামন্ত্রী মাথা নোয়াইনি, কখনো নোয়াবো না: প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থলে লাখো মানুষের ঢল দেশে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৩ পদ্মা সেতুতে টোল দিলেন প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করা হলো স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই, বললেন প্রধানমন্ত্রী

রাজধানীতে ঝুঁকিপূর্ণ শ্রমে নিয়োজিত দেড় লাখের বেশি শিশু

প্রতিদিনের চিত্র বিডি ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৩ জুন ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 

ঢাকা শহরেই দেড় লাখের বেশি শিশু ঝুঁকিপূর্ণ শ্রমে নিয়োজিত বলে দাবি করেছেন বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত মানববন্ধন ও সমাবেশের বক্তারা। গতকাল রাজধানীর সেগুন বাগিচায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সামনে এ মানববন্ধন ও সমাবেশের আয়োজন করে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা অ্যাকশন ফর সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট (এএসডি)।

 

‘শিশুশ্রম নিরসনে চাই সর্বজনীন সামাজিক সুরক্ষা’—এই স্লোগানকে সামনে রেখে আয়োজিত কর্মসূচিতে বক্তৃতা করেন এএসডির নির্বাহী পরিচালক এম এ করিম, প্রকল্প কর্মকর্তা গুল-ই জান্নাত জেনী, সুপারভাইজার সৈয়দ শাহিনুর রহমান প্রমুখ।

 

সমাবেশে বক্তারা বলেন, আইনে শিশুশ্রম নিষিদ্ধ হলেও এখনো শিশুরা কৃষি, কলকারখানা, গণপরিবহন, আবাসন, খাবারের দোকান, বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, ইটখোলা এবং নির্মাণ খাতে কাজ করছে।

 

দারিদ্র্য ও বৈষম্যের কারণে অনেকেই শ্রম দিতে বাধ্য হচ্ছে। ফলে তারা শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তাই শিশুশ্রম বন্ধ হলে দারিদ্র্য ও বৈষম্য কমাতে হবে। এ ক্ষেত্রে সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির প্রসার বড় ধরনের ভূমিকা রাখতে পারে বলে আশা প্রকাশ করেন তাঁরা।

 

মানববন্ধনে প্রীস্কুল, লার্নিং অ্যান্ড রিক্রিয়েশন সেন্টার ও ড্রপ-ইন-সেন্টারের পথশিশু, গৃহকর্মে নিয়োজিত শিশু, কর্মজীবী শিশু, বস্তিবাসী শিশু ও শিশুদের অভিভাবকরা এবং এএসডির কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন। তাঁরা বিভিন্ন দাবিসংবলিত পোস্টার ও প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করে। সেখানে অন্যতম দাবি ছিল ‘শিশু শিক্ষাকে হ্যাঁ বলুন, শিশুশ্রমকে না বলুন এবং শিশু নির্যাতন বন্ধ করুন। ’

 

এই বিভাগের আরো খবর