Berger Paint

ঢাকা, সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২,   অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ আবারও পেছালো যে কোনো মূল্যে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হবে: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে শিশু আয়াত হত্যা : আসামি আবীর ফের রিমান্ডে ৫০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কেউ পাস করেনি এসএসসিতে পাসের হার ৮৭.৪৪ শতাংশ সাংহাইয়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, বিক্ষোভ

শিক্ষক-কর্মকর্তার সুপারিশের লোক থাকায় তাদের বাস শহরে ঢুকতে পারে

এস এম মোজতাহীদ প্লাবন

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২২  



জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পরিবহনের বাসগুলো শহরের ভেতর প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তাদের বাসসহ বেসরকারি মালিকানাধীন ভাড়ায় চালিত "শালবন সুপার"-এর বাসগুলোর ময়মনসিংহ শহরে প্রবেশের অনুমতি রয়েছে।

 

ময়মনসিংহের ত্রিশালে অবস্থিত নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এক বিশাল অংশ ময়মনসিংহ শহর থেকে প্রতিদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস করতে আসা-যাওয়া করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পরিবহনের বাসগুলো গত ৪ নভেম্বর পর্যন্ত ২টি রুট ব্যবহার করতো। কিন্তু ৫ নভেম্বর থেকে ময়মনসিংহ শহরে তীব্র যানজট প্রতিরোধ করতে ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ প্রশাসনের কার্যালয় থেকে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয় শহরের ভেতর কোনো বাস প্রবেশ করতে পারবে না। পরবর্তীতে সময়সীমা বর্ধিত করে ১৫ তারিখ করা হয়।

 

উক্ত নিষেধাজ্ঞার প্রেক্ষিতে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন দপ্তর থেকে পরিবর্তিত রুটের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বলা হয়, "১৬ নভেম্বর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পরিবহনের বাসগুলো ঢাকা বাইপাস (দিঘারকান্দা) থেকে কেওয়াটখালী দিয়ে ব্রীজ হয়ে টাউনহল দিয়ে সড়ক ও জনপদের অফিস পর্যন্ত যাবে এবং এই পথে চলাচল করবে।"

 

এমন সিদ্ধান্তের কারণে যাতায়াত বিপাকে পড়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বিশেষ করে মাসকান্দা-চরপাড়ার আশেপাশের শিক্ষার্থীসহ শহরে টিউশনি করতে যাওয়া শিক্ষার্থীদের পোহাতে হচ্ছে চরম ভোগান্তি।

 

অন্যদিকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের বাস শহরে প্রবেশ না করলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন দপ্তর থেকে জানানো হয় শিক্ষক কর্মকর্তাদের বাস শহরে প্রবেশ করবে পূর্বের নিয়মেই।

 

এতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র সমালোচনার ঝড় উঠেছে। এ বিষয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে কথা বলার সময় ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আতিক বলেন,"শিক্ষক-কর্মকর্তার সুপারিশের লোক আছে কিন্তু আমাদের কেউ নাই, তাই আমাদের বাস শহরে যায় না। বাসের রুট পরিবর্তনের কারণে আমার মত অনেকেরই একবেলা খাবার বন্ধ হয়ে গেছে৷ টিউশনির জায়গা তো আর পাল্টাইতে পারছিনা, বাসের সন্ধানে দৌঁড়াতে অতিরিক্ত খরচ আমার কাছে বোঝা মনে হচ্ছে।"

 

মাসকান্দা-চরপাড়া রুটে চলাচলকারী শালবন সুপারের এক বাস চালকের সাথে কথা হয়। তাদের বাস ভেতরে ঢুকতেছে কিভাবে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, "আমাগোরে প্রশাসন ঢুকতে দেয়। হ্যাডাম লাগে মামা!"

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রাফি খান বলেন, "আমার চরপাড়া থেকে অটো করে বাইপাস পর্যন্ত যাওয়া লাগে। ৯ টার বাস ধরতে হলে আগে ৯ টায় বাসা থেকে বের হইতাম। এখন ৮:৫০ এর দিকে বের হয়ে অটো নিয়ে বাইপাস যাই, সেখানে প্রায় ২৫ মিনিটের মতো দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। অটো ওয়ালারা ভাড়া নিয়ে তো সবসময় ঝামেলা করেই। কিন্তু সময় এর অপচয় টাই বেশি হইতাসে।"
এছাড়াও শহর থেকে নিয়মিত যাতায়াত করে এমন সকল সাধারণ শিক্ষার্থী এমন সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

 

সার্বিক বিষয় নিয়ে পরিবহন প্রশাসক ড. আরিফুর রহমানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি প্রতিদিনের চিত্রকে বলেন,"আসলে অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা। আমি তো পরিবহন পরিচালনা কমিটির ১৩ সদস্যের এক সদস্য মাত্র। প্রশাসন যে সিদ্ধান্ত দিবে আমি তো তার বাইরে একা কিছু করতে পারিনা। সবার সম্মতিক্রমে যে সিদ্ধান্ত আসবে আমি শুধু তার বাস্তবায়ন করি মাত্র।"

 

অবশ্য ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ প্রশাসনের কাছে এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, "নিয়ম সবার জন্য সমান করা হয়েছে। তবে শিক্ষক কর্মকর্তার মিনি বাস প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।"

 

উল্লেখ্য, ২০ নভেম্বর (রবিবার) দুপুর ১টার দিকে বাসের রুট পরিবর্তনে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের জয়বাংলা ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন শেষে পরিবহন প্রশাসন বরাবর তাদের দাবীদাওয়া জমা দিয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর