Berger Paint

ঢাকা, সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২,   অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ আবারও পেছালো যে কোনো মূল্যে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হবে: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে শিশু আয়াত হত্যা : আসামি আবীর ফের রিমান্ডে ৫০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কেউ পাস করেনি এসএসসিতে পাসের হার ৮৭.৪৪ শতাংশ সাংহাইয়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, বিক্ষোভ

‘সব্যসাচী লেখক’ উপাধী পেলেন কথাসাহিত্যিক সৈয়দা রাশিদা বারী

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৯ নভেম্বর ২০২২  

‘শুদ্ধচিত্ত বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’ কর্তৃক ‘সব্যসাচী লেখক’ উপাধির সম্মাননা গ্রহণ করছেন কথাসাহিত্যিক সৈয়দা রাশিদা বারী।

‘শুদ্ধচিত্ত বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’ কর্তৃক ‘সব্যসাচী লেখক’ উপাধির সম্মাননা গ্রহণ করছেন কথাসাহিত্যিক সৈয়দা রাশিদা বারী।

 

থাসাহিত্যিক সৈয়দা রাশিদা বারী ‘শুদ্ধচিত্ত বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’ কর্তৃক পেলেন সাহিত্যের সর্বাঙ্গনে অসামান্য অবদান রাখায় ‘সব্যসাচী লেখক’ উপাধি। এ যাবত তিনি প্রায় ৭৫টি পুরষ্কারে ভূষিত হয়েছেন।

 

শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সংগঠন ‘শুদ্ধচিত্র বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’ এর ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ঢাকার গণমাধ‍্যম ইনস্টিটিউট অডিটোরিয়ামে সম্প্রতি আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়।

 

সংগঠনের সভাপতি কামরুজ্জামান কায়েম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন এর উর্দ্ধতন কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামান বাবুল প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। মনোঙ্গ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ‍্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

 

উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে সৈয়দা রাশিদা বারী নিজেকে ভাষা সৈনিকের কন্যা হিসাবে উল্লেখ করেন। তার বাবা-মা দু’জনই মারা গেছেন বলে তিনি জানান। তিনি তার ভবিষ্যৎ কর্মকান্ডে সফলতার জন্য সকলের নিকট দোয়া প্রার্থনা করেন।

 

সৈয়দা রাশিদা বারী’র রচিত গ্রন্থের সংখ্যা প্রায় ২০০টি। তবে প্রকাশিত গ্রন্থ ১০০টির উপর। বেশ কিছু গ্রন্থ প্রকাশ হওয়ার পথে কাজ চলছে। তিনি ৪ হাজারের অধিক গান লিখেছেন। ‘ঝংকৃত কথামালা’ নামে ৪০০ পৃষ্ঠার গানের গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।

 

‘স্বরলিপির সুরপা’ নামে তার একটি স্বরলিপিসহ গানের গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। ‘অলংকৃত কথামালা’ নামক আরেকটি গানের গ্রন্থ খুব শীঘ্রই প্রকাশ হবে।

 

তিনি বাংলাদেশ বেতার, বাংলাদেশ টেলিভিশন এবং চলচ্চিত্রের গীতিকার।

 

তিনি বর্তমানে জাতীয় সচিত্র মাসিক ‘স্বপ্নের দেশ’ পত্রিকার সম্পাদক-প্রকাশক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি অনেকগুলো শিক্ষা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক স্থানীয়, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের সাধারণ সদস্য ও আজীবন সদস্য হিসাবে আছেন।