Berger Paint

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৪ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রাহায়ণ ১০ ১৪২৭

ব্রেকিং:
আনুষ্ঠানিকভাবে সম্ভাব্য বাইডেন মন্ত্রিসভার ৬ সদস্যের নাম ঘোষণা ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হচ্ছেন জামালপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. ফরিদুল হক খান ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘নিভার’, প্রভাব পড়তে পারে বাংলাদেশে
সর্বশেষ:
করোনায় মারা গেলেন আসামের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ বাইডেনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়া শুরু করতে রাজি হলেন ট্রাম্প অ্যান্টিমাইক্রোবায়াল রেজিস্ট্যান্স গ্রুপের কো-চেয়ারম্যান হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর যোগদান

সম্পাদক মতিউর রহমানসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে বিচার শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১২ নভেম্বর ২০২০  

পঠিত: ১১৪
প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান ও নিহত আবরার, ছবি- সংগৃহীত।

প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান ও নিহত আবরার, ছবি- সংগৃহীত।

 

ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্র নাঈমুল আবরার রাহাতের মৃত্যুর ঘটনায় করা মামলায় প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমানসহ আরও ৯ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

 

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক সকাল ১০.৩০ টার দিকে কে এম ইমরুল কায়েশ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ধুরু করেন। তবে, ৯জন আসামিদের মধ্য থেকে কিশোর আলো সম্পাদক আনিসুল হককে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে।

 

শুনানিতে শুরুতে বাদীপক্ষের আইনজীবী আদালতকে ব্যাখ্যা করেন, আয়োজকদের অবহেলাতেই বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নবম শ্রেণির ছাত্র আবরারের মৃত্যু হয়। আবরারের মৃত্যুর ঘটনার পর তাকে নিকটস্ত হাসপাতালে না নিয়ে অতিদূরের হাসপাতালে নেওয়ার ব্যাপারে পরিবারকে না জানানোর বিষয়টিও আদালতে তুলে ধরেন বাদীপক্ষের আইনজীবী।

 

অপরদিকে আবরারের মৃত্যুর ঘটনাকে একটি দুর্ঘটনা বলে রজ্জুকৃত মামলা থেকে অভিযুক্ত ১০ আসামিকে অব্যাহতি দেওয়ার বিষয়ে মহামাণ্য আদালতে একটি আবেদন করে আসামিপক্ষ।

 

প্রসঙ্গত, গত বছর ১লা নভেম্বর ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে 'কিশোর আলোর বর্ষপূর্তি'-এই অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যায় ওই স্কুলের ছাত্র আবরার।

 

আরও পড়ুন

ট্রাম্পের ব্যর্থতাই বাইডেনের সফলতার ভিত্তি

 

এ ঘটনায় আয়োজকদের দায়িত্ব অবহেলায় তার ছেলের মৃত্যু ঘটেছে এমন অভিযোগে  আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করেন আবরারের বাবা মজিবুর রহমান। এদিকে চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারিতে অভিযুক্ত প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমানসহ ১০ আসামির বিরুদ্ধে তদন্ত রিপোর্ট দেয় পুলিশ। সে রিপোর্টের ভিত্তিতে জারি হয় আসামীদের গ্রেফতারি পরোয়ানা। এরপর একটি মুচলেকা আবেদনের মাধ্যমে অস্থায়ী জামিন পান প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান।