Berger Paint

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২২ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৭ ১৪২৭

ব্রেকিং:
করোনায় আক্রান্ত `সারেগামাপা`র ৪ বিচারক শারদীয় দুর্গাপূজা শুরু, আজ ষষ্ঠী নতুন বছরের শুরুতেই কমপক্ষে দুটি করোনার টিকা মিলবে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা স্পেনে শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়ালো অস্কফোর্ডের ভ্যাকসিন ট্রায়াল: ব্রাজিলে স্বেচ্ছাসেবীর মৃত্যু
সর্বশেষ:
লাইফ সাপোর্টে ব্যারিস্টার রফিক-উল হক এইচএসসির ফরম পূরণের আংশিক টাকা ফেরত পাবেন শিক্ষার্থীরা সাবরিনার মামলায় দুই ওসিকে শোকজ যুক্তরাষ্ট্রে নাইটক্লাবে বন্দুক হামলায় নিহত ৩ আইপিএলের সাফল্যে অবাক হয়নি সৌরভ

সর্ববৃহৎ অনলাইন বইয়ের বাজার তৈরির লক্ষ্যে আসছে বইপল্লী ডট কম

তুফান মাজহার খান

প্রকাশিত: ১৩ আগস্ট ২০২০  

পঠিত: ৩৬৯
ছবি- প্রতিদিনের চিত্র

ছবি- প্রতিদিনের চিত্র

 

স্মার্টফোন মানুষের বইয়ের চাহিদা অনেকটা কমিয়ে দিয়েছে। তাছাড়া হাতের কাছের বইয়ের দোকানগুলোতে চাহিদা অনুযায়ী বই না পাওয়াও পাঠকের বই বিমুখতার একটি বড় কারণ। আবার নিয়োগ বা প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য একটা বই কিনতে জেলা শহরগুলোতে ঘুরতে হয়। কারণ গ্রাম বা মফস্বলের বইয়ের দোকানগুলোতে সব বই পাওয়া বেশ মুশকিল। কারো যদি একটা মানসম্মত বই জরুরি দরকার সেটা নিতে ঢাকা আসতে হয় অথবা অনেক হ্যাস্তন্যাস্ত হওয়ার পরই তা সংগ্রহ করা সম্ভব হয়। আর সেসব চিন্তাকে মাথায় রেখেই বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বই এবং স্টেশনারী প্লাটফর্ম হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে 'বইপল্লী ডট কম'।

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান বিন আরফান জানান, 'বইপল্লী ডট কম' আত্মপ্রকাশের সকল প্রস্তুতি শেষের পথে। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী মাসেই আমরা আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছি।

তিনি তার ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে জানান, বইয়ের দোকানগুলোতে গিয়ে বই কেনার দিন শেষ হতে চলেছে। শত কর্মব্যস্ততার মাঝে যথাসময়ে সন্তানের চাহিদা মতো বই কিনে দেয়া সম্ভব হয় না। এছাড়াও লোকাল বইয়ের দোকানগুলোতে সব প্রকাশনীর বই সংরক্ষিত থাকে না। ফলে যা আছে, তাই কিনতে হয়। নিয়োগ বা প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য একটা বই কিনতে জেলা শহরগুলোতে ঘুরতে হয়। প্রিয়জনকে উপহার দিতে একটা মানসম্মত বই জরুরি দরকার হয়, যা জেলা শহরগুলোতে পাওয়া যায়, মফস্বলে নয়।

এমন দিনগুলো ইনশাআল্লাহ্ অচিরেই শেষ হতে চলছে।

এখন থেকে বাংলাদেশের যেকোনো প্রান্তে বসেই অনলাইনে কিনতে পারবেন সব ধরনের বই 'বইপল্লী ডট কম' থেকে। বাজার দরও ঢাকার পাইকারি বাজার দরের মতোই থাকবে। অর্থাৎ, ঠকার কোনো সম্ভাবনাই নেই। তাছাড়া পাবেন টেস্ট পেপারসহ প্র্যাকটিকেল খাতা, কলম ও শিক্ষা উপকরণ সমূহ।
তিনি সংবাদ মাধ্যমকে আরও জানান, আমরা প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানদেরও বেশি লাভবান হওয়ার সুযোগ দিচ্ছি। ক্রেতাদেরও দেওয়া হবে প্রচলিত ছাড়ের চেয়ে বেশি। আর ডেলিভারি চার্জও অতি নগণ্য। যা রিকশাভাড়া দিয়ে বাজার থেকে বই কিনে আনারচেয়েও কম হবে। আর আগেই বলেছি, আমাদের সাইটে থাকবে সকল ধরণের বই। স্কুল, মাদরাসা, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সকল শিক্ষার্থীদের সব ধরণের বই পাওয়া যাবে 'বইপল্লী ডট কম' এ। অর্থাৎ বাংলাদেশের যেকোনো প্রকাশনীর বই-ই পাবেন বইপল্লী'তে। শুধু তাই না, সকল ধরণের গাইড ও স্টেশনারী পণ্যও পাবেন সাশ্রয়ী মূল্যে। তাই আশা করব, বাংলাদেশের সকল পাঠক, শিক্ষার্থী ও শিক্ষানুরাগীগণকে বইপল্লীর সাথে পাব।

বইপল্লী বইয়ের বাজারে ব্যাপক সাড়া ফেলবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। বর্তমান আধুনিক সময়ে এমন একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ আসলেই প্রসংশার দাবি রাখে। আশা করা যায়, দেশের সকল পাঠক, শিক্ষার্থী ও শিক্ষানুরাগীদের মন জয় করতে সচেষ্ট হবে 'বইপল্লী ডট কম'।

এই বিভাগের আরো খবর