Berger Paint

ঢাকা, সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২,   অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ আবারও পেছালো যে কোনো মূল্যে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হবে: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে শিশু আয়াত হত্যা : আসামি আবীর ফের রিমান্ডে ৫০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কেউ পাস করেনি এসএসসিতে পাসের হার ৮৭.৪৪ শতাংশ সাংহাইয়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, বিক্ষোভ

সাত লাখ টাকায় বিক্রি হয় বিমানে নিয়োগের প্রশ্ন

প্রতিদিনের চিত্র বিডি ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২ অক্টোবর ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বিক্রি হয়েছে দুই থেকে সাত লাখ টাকায়। যারা তাৎক্ষণিকভাবে টাকা দিতে পারেনি, তাদের সঙ্গে ৩০০ টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে চুক্তি হয়েছে। চাকরি পাওয়ার পর তারা টাকা অথবা জমি-বাড়ি দিতে বাধ্য থাকবে- এমনটাই লেখা ছিল সেই চুক্তিতে।

 

প্রশ্ন ফাঁসকাণ্ডে গ্রেপ্তারকৃতদের নিজের হাতে লেখা ডায়েরিতে লাখ-লাখ টাকা গ্রহণ এবং তা বণ্টনের প্রমান পাওয়া গেছে। চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে নগদ টাকার পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যাংক চেকের মাধ্যমেও টাকা হাতিয়েছে চক্রটি। এই চক্রে বিমানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কেউ কেউ জড়িত বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

বিমানের নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসে জড়িত সংস্থাটির পাঁচ কর্মীকে গ্রেপ্তারের পর আজ শনিবার এসব তথ্য জানায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

 

গ্রেপ্তারকৃতরা হল- এমটি অপারেটর জাহাঙ্গীর আলম, মোহাম্মদ মাহফুজ আলম ভূঁইয়া ও এনামুল হক এবং অফিস সহায়ক আওলাদ হোসেন ও হারুনুর রশিদ।

 

শুক্রবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই) ও ডিবি লালবাগ বিভাগের একাধিক দল বিমানবন্দর ও কাওলা এলাকায় এ অভিযান চালায়। গ্রেপ্তারকালে তাদের কাছ থেকে ফাঁসকৃত প্রশ্নের সফট/হার্ডকপি, মোবাইল ফোন, নগদ দেড় লাখ টাকা, ব্যাংকের চেক, স্ট্যাম্পে স্বাক্ষরিত দলিল, হিসাব-নিকাশের চারটি ডায়েরি ও বিভিন্ন প্রার্থীর এডমিট কার্ড উদ্ধার করা হয়েছে।

 

এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানাতে আজ রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে ডিবি প্রধান অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, শুক্রবার বিমানের বিভিন্ন ট্রেডে ১০০ নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে এমন তথ্যে অপরাধীদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তারে মাঠে নামেন গোয়েন্দারা। একপর্যায়ে বৃহস্পতিবার রাতেই ১০০ প্রশ্ন সম্বলিত প্রশ্নপত্র তাদের হাতে আসে। এরপর জড়িত পাঁচজনকে আইনের আওতায় আনা হয়।

 

ডিবি প্রধান জানান, বিমান বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ প্রতিটি নিয়োগের ক্ষেত্রেই জিএম, ডিজিএমদের সমন্বয়ে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন, প্রিন্ট, সংরক্ষণ, পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়া এবং পরীক্ষা কন্ডাক্ট করে দেওয়ার জন্য একটি কমিটি গঠন করে। এই কমিটি প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধসহ যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে প্রত্যাশা করা হয়। কীভাবে কমিটির চোখ ফাঁকি দিয়ে ঢালাওভাবে প্রশ্নপত্র ফাঁস হলো তার রহস্য উদঘাটনের জন্য আসামিদের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। প্রয়োজনে পরীক্ষা কমিটির সদস্যদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

এই বিভাগের আরো খবর