Berger Paint

ঢাকা, শুক্রবার   ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ১০ ১৪২৭

ব্রেকিং:
রূপান্তরের মাধ্যমে আরও সংক্রামক হতে পারে করোনা দাবি বিশেষজ্ঞদের নিয়োগ-বাণিজ্যের ৮০ ভাগ নিয়ন্ত্রণ করতেন মালেক! প্রেসিডেন্টের পূর্ব নির্ধারিত লন্ডন সফর স্থগিত ‘কোন রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশি পাসপোর্ট দেয়া হবে না’ পরীক্ষার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে করোনা নেগেটিভ সনদ নিয়ে যেতে হবে সৌদি আরব
সর্বশেষ:
১১ দিনে ভারত গেল ৫০৩ মেট্রিক টন ইলিশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ১৫ দিন পর এইচএসসি পরীক্ষা পশ্চিমবঙ্গে ২৪ ঘণ্টায় ফের সর্বোচ্চ মৃত্যু নভেম্বরে বাংলাদেশকে ভ্যাকসিন দিতে চায় রাশিয়া

স্ত্রী-ছেলের পর না ফেরার দেশে স্বামী রনিও

প্রতিদিনের চিত্র ডেস্ক

প্রকাশিত: ২ মার্চ ২০২০  

পঠিত: ৩০২
ছবি - সংগৃহীত

ছবি - সংগৃহীত

গত বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ভোরে রাজধানীর ইস্কাটনের দিলু রোডের অগ্নিকাণ্ডের একটি ঘটনা ঘটে। এ অগ্নিকাণ্ডে এক শিশুসহ তিনজনের মৃত্যু হয়, দগ্ধ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিল শিশু রুশদির বাবা-মা। এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ছেলে রুশদি ও স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌসের পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেলেন স্বামী রনিও। আজ সোমবার (২ মার্চ) সকালে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে মারা যান তিনি।

এর আগে রোববার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজের (ঢামেক) শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌসের মৃত্যু হয়। তার শরীরে ৯৫ শতাংশ পোড়া ছিল। এই নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল পাঁচ জনে।

ভবনে আগুন লাগার বিষয়টি টের পেয়ে শিশু সন্তান এ কে এম রুশদিকে নিয়ে সিঁড়ি বেয়ে নিচের দিকে নামছিলেন বাবা-মা, এক ফাঁকে বাবার হাত ফসকে বেরিয়ে যাওয়া শিশুটি আগুন-ধোঁয়ার সঙ্গে লড়াইয়ে আর টিকল না।

বৃহস্পতিবার ভোরে ইস্কাটনের দিলু রোডের পাঁচতলা ভবনের তৃতীয় তলার সিঁড়িতে শিশুটির পোড়া দেহ পড়েছিল। তার বাবা শহীদুল কিরমানি রনি (৩৯) ও মা জান্নাতুল ফেরদৌসও (৩৪) মৃত্যুর সঙ্গে লড়তে থাকেন বার্ন ইউনিটে।

 

এই বিভাগের আরো খবর