Berger Paint

ঢাকা, বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১৩ ১৪২৭

ব্রেকিং:
নির্মাতা দেবাশীষ বিশ্বাস কারাগারে আজারবাইজানের হামলায় কারাবাখের প্রতিরক্ষামন্ত্রী আহত কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ায় বিষাক্ত মদপানে প্রাণ গেল ৩ যুবকের বদলির কারণে উন্নয়ন যেন বাধাগ্রস্ত না হয় :প্রধানমন্ত্রী ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণার ওয়েবসাইট হ্যাকড
সর্বশেষ:
তুর্কি-ইসরাইলি পতাকায় আগুন আর্মেনীয়দের হাজী সেলিমের দখলে থাকা অগ্রণী ব্যাংকের জমি উদ্ধার ইরফান সেলিম ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে আরও ৪ মামলা

স্বর্ণপদক পেলেন একদুয়ারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুজ্জামান

মনোহরদী উপজেলা প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৪ অক্টোবর ২০২০  

পঠিত: ৭৬২
ছিব- দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র।

ছিব- দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র।

ইউনিয়ন ভিত্তিক এবং সর্বস্তরের জনসেবায় অসামান্য অবদান রাখার জন্য 'বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ ফোরাম' মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) একদুয়ারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান 'ইঞ্জি. মো. আনিসুজ্জামান সরকার মিটুল'কে স্বর্ণ পদকে ভূষিত করেন। গত ২০১৬ সালে ইউপি নির্বাচনে প্রতিপক্ষকে পরাজিত করে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন তিনি।

 

ইঞ্জি. মো. আনিসুজ্জামান সরকার মিটুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে জনগণের কাছে দেওয়া প্রতিশ্রুতি একে একে বাস্তবায়ন করেছেন।  উক্ত অঞ্চলের উন্নয়নের রোল মডেল এবং শিল্প মন্ত্রী এ্যাডভোকেট নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন-এর ভ্যানগার্ড হিসেবে পরিচিত ইঞ্জি. মো. আনিসুজ্জামান সরকার মিটুল চেয়ারম্যান তাঁর কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ এই পদক অর্জন করেন।

 

ছাত্র রাজনীতির সে সময়ে 'বাংলাদেশ ছাত্রলীগ'-এর মনোনয়ন নিয়ে সিলেট পলিটেকনিক ইন্সটিউট 'ছাত্র সংসদ' নির্বাচনে এ,জি,এস নির্বাচিত হন। বর্তমানে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, একদুয়ারিয়া ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে পরপর দুই মেয়াদে সম্পূর্ণ নিষ্ঠা ও সফলতার সহিত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন মিটুল।

 

প্রতিদিনের চিত্রের প্রতিনিধি ওই ইউনিয়নের জনসাধারণের সাথে আলাপ কালে জানতে পারে, করোনা মহামারীর কারণে দেশে যখন একধরণের অচলাবস্তা সৃষ্টি হয়েছিল সে সময়ে মিটুল মাননীয় শিল্পমন্ত্রী এ্যাড. নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ন এমপি'র নির্দেশানুসারে একদুয়ারিয়া ইউনিয়ন বাসীর সার্বক্ষনীক খোঁজ-খবর রেখেছেন। বিচক্ষণতার সাথে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে ও ব্যক্তিগত খরচে সর্বস্তরের জনগণের কাছে ত্রাণ বিতরণ করেছেন। আইনশৃঙ্খলা এবং সার্বিক পরিস্থিতি মোকাবেলায় দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে প্রশাসনকে সহযোগীতা দিয়েছেন।  

 

জানা যায়, নিজের একান্ত প্রচেষ্টায় একদুয়ারিয়া ইউনিয়নে তৈরী করেছেন বেশ কিছু দর্শনীয় মসজিদ। ইসলামি শিক্ষা প্রসারে এলাকার পৃষ্ঠপোষক হিসেবে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন বেশ কিছু মাদ্রাসার। অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী মানবসেবায় নিবেদিত এই মানুষ মানুষের নেতা হিসেবে ভিন্নধর্মাম্বলী সনাতন ধর্মালম্বী হিন্দু জনগণের পাশেও দাড়িয়েছেন । তিনি নতুন মন্দির নির্মাণ, পুরনো মন্দির সংস্কার এবং শশান ঘাট পরিচর্যাসহ নানাবিধ সহযোগিতা করে চলেছেন।

 

ব্যাক্তি মিটুল তাঁর এলাকার সংখ্যা লঘুদের অত্যাচার হতে দেননি। মাদকের বিপক্ষে ছিলেন সোচ্চার । ইউনিয়ন মাদক মুক্ত করতে সভা সেমিনারের মাধ্যমে হুঁশিয়ারী করে নিজের অবস্থান জানান দিয়ে এলাকা মাদক মুক্ত রেখেছেন।

 

তিনি অত্র ইউনিয়নের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে রেখেছেন নিবির তদারকির মধ্যে। প্রতিনিয়তই যোগাযোগ রাখতেন গভর্নিং বডি, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সাথে। জন সাধারণের বিনোদনের কথা ভেবে 'বৈশাখী বেলা' পার্ক প্রতিষ্ঠায় রেখেছিলেন সবোর্চ্চ ভূমিকা। যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নের আরেকটি স্তম্ভ, সে যোগাযোগ ব্যবস্থাকে উন্নত করণে সড়ক প্রশস্ত করেছেন, সংস্কার করেছেন বহু রাস্তা-ঘাট, করেছেন নতুন নতুন রাস্তা নির্মাণ। একদুয়ারিয়া ইউনিয়ন এলাকার একজন সফল সমাজ সেবক হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেছেন মিটুল চেয়ারম্যান। নিজ আসনের জনগণের সমস্যা-সমাধানে অক্লান্ত শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

 

জনসেবায় পাগল মিটুল নিজের কর্মদক্ষতা, সততা, নিষ্ঠার সাথে দায়িত্বপালন করার ফলশ্রুতিতে শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান হিসেবে বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ ফোরাম কর্তৃক এলজিএসপিতে ‘এ’ গ্রেডভুক্ত শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান সম্মননা স্বরূপ অর্জন করেছেন কর্ম জীবনের সর্বোচ্চ সম্মাননা 'স্বর্ণ পদক'।

 

পাশাপাশি 'বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ ফোরাম' এর আজীবন সদস্য হিসেবে-ও মনোনীত হয়েছেন ইঞ্জি. মো. আনিসুজ্জামান সরকার মিটুল। জনসেবক এই অতন্দ্র প্রহরীর সুনিপুন মেধা ও প্রজ্ঞাকে নাগরিক সেবায় রোল মডেল তত্ত্ব হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে পারলে দৃষ্টান্ত তৈরী হবে। নাগরিক সেবায় এই রোল মডেল তত্ত্বকে তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছে দিতে পারলে দেশের মানুষের আশার আলো আরো বৃদ্ধি পাবে।

 

প্রসঙ্গত, মনোহরদী উপজেলাছকে বিশ্ব ব্যাংক ও বাংলদেশ সরকারের এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের ২০১৭-১৮ অর্থ বছরের বরাদ্দ থেকে জেলা প্রশাসকের বিশেষ উদ্যোগে একটি অত্যাধুনিক এম্বুলেন্স এনেদিয়েছেন এই একদুয়ারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ।

এই বিভাগের আরো খবর