ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৬ মে ২০২২,   জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
রাজধানীতে বাসা থেকে দুই যুবকের মরদেহ উদ্ধার প্রেমিকাকে ভিডিও কলে রেখে কলেজছাত্রের আত্মহত্যা বাইডেন যেতেই একসঙ্গে ৩ ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল উত্তর কোরিয়া টেক্সাসে স্কুলে গুলি: বাইডেনের ক্ষোভ, পতাকা অর্ধনমিত রাখার ঘোষণা গুলি করে খুন করা হয়েছে অভিনেত্রী পল্লবীকে! জার্মানিতেও ছড়িয়ে পড়ছে মাঙ্কিপক্স মেক্সিকোতে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহত ১১

শিক্ষার্থীদের মধ্যে টিকাদানের কর্মসূচি জোরদার চলছে- শিক্ষামন্ত্রী

প্রতিদিনের চিত্র বিডি ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬ জানুয়ারি ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।


কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোনো ধরনের সংক্রমণের খবর পাওয়া যায়নি জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষার্থীদের মধ্যে টিকাদানের কর্মসূচি জোরদার চলছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হলে সেই টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

 

তিনি বলেন, আমরা পর্যালোচনা করছি, গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছি, কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কোনো ধরনের সংক্রমণের খবর পাইনি। স্বাস্থ্য অধিদফতরও নজর রাখছে। আমরা নিয়মিতভাবে জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। ফলে এখনই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করার বিষয়ে ভাবছি না।

 

রোববার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে সাভারের বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে (বিপিএটিসি) এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন মন্ত্রী।

 

দীপু মনি বলেন, যতটুকু সম্ভব জীবন স্বাভাবিক রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু রাখা হবে। তবে যদি তেমন বড় প্রয়োজন দেখা দেয় আমরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেব।

 

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের বিষয়ে তিনি বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) যেভাবে সিদ্ধান্ত নেয় সেটা ভাবা হবে। আমরা প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে কথা বলেছি। সেখানে তারা জানিয়েছেন তারা নিয়মিত মনিটরিং করছেন। স্বাস্থ্যবিধি খুব কঠোরভাবে তারা মানার চেষ্টা করছেন। এরমধ্যে দিয়ে কোথাও তারা কোনো সংক্রমণের আশঙ্কা দেখছেন না। সে কারণেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খোলা আছে।

 

শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সরকারি বেসরকারিসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষার্থী পরিচয় নিয়ে গেলেই সেখানে তারা টিকা পাবেন। এখানে কাউকেই বাদ দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

 

বিশ্ববিদ্যালয় খোলা বা বন্ধ রাখার প্রশ্নে তিনি বলেন, এটা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিদ্ধান্ত। আমরা বলতে চাই যতটা সম্ভব স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বাভাবিক জীবনযাপন রেখে আমরা করোনার প্রকোপ মোকাবিলা করব। এটিই আমাদের সিদ্ধান্ত। যদি তেমন প্রয়োজন দেখা দেয়, তবে নিশ্চয়ই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এখন পর্যন্ত আমরা যেভাবে পর্যবেক্ষণ করছি তাতে এখন পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

 

শিক্ষার্থীদের টিকাদানে অব্যবস্থাপনার প্রশ্নে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের টিকাদানে এখন পর্যন্ত যেভাবে চিন্তা করা হয়েছে সেভাবেই চলবে। যদি ভিন্ন কোনোভাবে নেওয়ার প্রয়োজন হয় সেটা করা হবে।

 

বই বিতরণে অনিয়মের বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চাহিদার ভিত্তিতে বিনামূল্যে বই পৌঁছে দেওয়া হয়। বই বিতরণে কোনো অনিয়মের সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই বিভাগের আরো খবর