ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২,   আষাঢ় ১১ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
পদ্মায় স্বপ্নপূরণের ক্ষণগণনা
১৮দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
০৬মিনিট
:
১০সেকেন্ড
সর্বশেষ:
সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানালেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর মধ্য দিয়ে দেশ নতুন যুগে প্রবেশ করেছে: শিক্ষামন্ত্রী মাথা নোয়াইনি, কখনো নোয়াবো না: প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থলে লাখো মানুষের ঢল দেশে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৩ পদ্মা সেতুতে টোল দিলেন প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করা হলো স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই, বললেন প্রধানমন্ত্রী

বাংলালিংকের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার নগরবাউল-মাইলসের

প্রতিদিনের চিত্র বিডি ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৬ মে ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 
নুমতি ছাড়া গান ব্যবহারের অভিযোগে মোবাইল ফোন অপারেটর বাংলালিংকের চার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কপিরাইট আইনে করা মামলা প্রত্যাহার করেছেন ব্যান্ড দল ‘নগর বাউল’ ও ‘মাইলস’।

 

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশের আদালতে মামলা প্রত্যাহারের আবেদন করেন নগর বাউলের জেমস এবং মাইলসের হামিন আহমেদ।

 

শুনানিতে মাইলসের মানাম আহমেদ আদালতকে বলেন, ভুল-বোঝাবুঝি থেকে মামলাটি করা হয়েছিল। এখন আর মামলা পরিচালনা করতে চাচ্ছি না।

 

মামলাটি করা হয় বাংলালিংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরিক অস, প্রধান কমপ্লায়েন্স অফিসার এম নুরুল আলম, প্রধান করপোরেট রেগুলেটরি অফিসার তৈমুর রহমান ও হেড অব ভ্যালু অ্যাডেড সার্ভিস অনিক ধর। এ সময় তারা আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

 

এ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি তাপস পাল সাংবাদিকদের বলেন, এ মামলায় আগে থেকেই তারা জামিনে ছিলেন।

 

বাংলালিংকের পক্ষের আইনজীবী মো. মতিউর রহমান বলেন, বাদীরা স্বেচ্ছায় মামলা প্রত্যাহারের আবেদন করায় আদালত তা মঞ্জুর করেছেন।

 

গত বছরের ১০ নভেম্বর বাংলালিংকের ৫ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কপিরাইট আইনে দুটি মামলা করেন নগর বাউলের জেমস এবং মাইলসের হামিন আহমেদ। তবে বাংলালিংকের প্রধান ডিজিটাল কর্মকর্তা সঞ্জয় ভাগাসিয়া স্থায়ীভাবে বিদেশে চলে যাওয়ায় বাদীপক্ষ আসামির তালিকা থেকে তার নাম বাদ দেয়।

 

মামলায় মানাম ও হামিন অভিযোগ করেন, তাদের লেখা ও সুর করা ‘নীলা’ ও ‘ফিরিয়ে দাও’ গান দুটি বাংলালিংক অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করে কোটি কোটি টাকা আয় করে আসছে। এতে তারা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। অন্যদিকে জেমসও তার গাওয়া ‘দুঃখিনী দুঃখ করোনা’, ‘জিকির’, ‘লুটপাট’, ‘সুম্মিতা’, ও যার যার ধর্ম গান সম্পর্কেও একই ধরনের অভিযোগ করেন।

 

আজ এ মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার বদলে বাদীপক্ষ মামলা তুলে নেওয়ার আবেদন করে।

 

এর আগে গতবছর ডিসেম্বরে বাদীপক্ষের আইনজীবী বাহারুল ইসলাম বলেছিলেন, মামলা নিয়ে আপসের কথাবার্তা চলছে। জেমস ও মাইলস ৫ কোটি করে ১০ কোটি টাকা দাবি করেছেন। সেই রফাতেই মামলা তোলা হল কি না- সে বিষয়ে বৃহস্পতিবার আদালতে কিছু বলেননি তারা।

এই বিভাগের আরো খবর