ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২,   আষাঢ় ১১ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
পদ্মায় স্বপ্নপূরণের ক্ষণগণনা
১৮দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
০৬মিনিট
:
১০সেকেন্ড
সর্বশেষ:
সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানালেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর মধ্য দিয়ে দেশ নতুন যুগে প্রবেশ করেছে: শিক্ষামন্ত্রী মাথা নোয়াইনি, কখনো নোয়াবো না: প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থলে লাখো মানুষের ঢল দেশে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৩ পদ্মা সেতুতে টোল দিলেন প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করা হলো স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই, বললেন প্রধানমন্ত্রী

রাজশাহীতে প্রশাসনকে বৃদ্ধাংগুলি দেখিয়ে বেড়েই চলেছে মাদকের ব্যবসা

নাজিম হাসান, রাজশাহী

প্রকাশিত: ১৯ মে ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।


রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী কে বৃদ্ধাংগুলি দেখিয়ে চলছে মাদক ব্যবসা। মাঝে মাঝে প্রশাসনিক তৎপরতা থাকলেও গোপনে-প্রকাশ্যে মাদকের ব্যবহার বেড়েই চলেছে।

 

এ ব্যবসাকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠছে নতুন নতুন সিন্ডিকেট। এখন উপজেলার প্রায় শতাধিক স্পটে মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রন করছে পুরাতনের পাশাপাশি নতুন নতুন সিন্ডিকেট। এসব সিন্ডিকেটের সদস্যরা ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছে। তবে হেরোইন ও ফেন্সিডিলের নব গঠিত কয়েকটি ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের সন্ধান পেলেও তাদের গ্রেফতার করছেনা পুলিশ। এলাকা সূত্রে জানা গেছে, প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে বিভিন্ন স্থানে চলে মাদকের ব্যবসা। উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় ভবানীগঞ্জ বাজারে র‌্যাবের অভিযান একবার হলেও উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গোপনে ও প্রকাশ্যে চলছে মাদকের কেনা-বেচা। মাদকসেবীরা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নিরাপদ স্থানে চাহিদামত মাদক সরবরাহ করে আসছে বলে জানা গেছে। এলাকায় মাদকের বিস্তারের জন্য স্থানীয়রা পুলিশের নিষ্ক্রিয়তাকে দায়ী করছেন। এছাড়া মাদকের ব্যবহার বেড়ে যাওয়ায় এলাকায় চুরির ঘটনা বাড়ছে বলে জানা গেছে। সম্প্রতি ভবানীগঞ্জ বাজারের বিভিন্ন দোকানে চুরির ঘটনায় মাদকাসক্তরা জড়িত থাকার সন্দেহ করছেন স্থানীয়রা। নেশার টাকা যোগাড় করতেই চুরির পথ বেছে নিচ্ছে তারা এমন অভিমত তাদের। ওই বাজারের মাষ্টার পাড়ায় মাদকের আখড়া হিসেবে চিহ্নিত। এছাড়াও হেলিপ্যাড মাঠের পেছনে, সিনেমা হল পট্টিসহ কয়েকটি স্পটে দীর্ঘদিন থেকে মাদক ব্যবসা চলছে।

 

অপরদিকে তাহেরপুর পৌর এলাকায় মাদকের ভয়াবহ বিস্তার লাভ করেছে। তাহেরপুর-দুগার্পুর রোড, সুইস গেট এলাকাসহ কয়েকটি স্পটে চলছে কেনাবেচা। স্থানীয়রা জানায়, রাজশাহীর চারঘাটের টাঙন এলাকার চোরাচালানির সহযোগীতায় ওই এলাকা হতে মাদকের চালান এনে তা বাগমারার তাহেরপুর, ভবানীগঞ্জ, শিকদারী থেকে বিভিন্ন গ্রামে সরবরাহ করা হয়। পার্শ্ববর্তী আত্রাই উপজেলার চিহ্নিত কিছু মাদকসেবী মোটরসাইকেল যোগে বাগমারায় এসে নির্বিঘ্নে মাদক সেবন করছে। সম্প্রতি শিকদারী বাজারে তাদের আনাগোনায় ওই বাজারের ব্যবসায়ী মহল উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠেছে। হাত বাড়ালেই ভবানীগঞ্জ, তাহেরপুর, শিকদারী, মচমইল বাজার, হাট গাঙ্গোপাড়া বাজারসহ বিভিন্ন স্পটে ফেন্ডিডিল, হেরোইন, ইয়াবা পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়াও উপজেলার অনেক রাজনীতিবিদ, গণ্যমান্য ব্যাক্তি, শিক্ষক ছাত্র, ভ্যান চালকসহ অনেকেই মাদক সেবনে জড়িত হচ্ছে বলে সূত্র জানিয়েছে। আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোঁখ ফাঁকি দিয়ে নিত্য নতুন কৌশলে চলছে মাদক ব্যবসা ও সেবন। এর আগে তাহেরপুরের সহদর দুই ভাই ও বাসুপাড়া ইউনিয়নের দ্বীপনগর এলাকার জনৈক শিক্ষকের অতিরিক্ত মাদকসেবনে মৃত্যু হলেও থেমে নেই ওই এলাকায় মাদক ব্যবসা। মচমইল বাজার এলাকায় অতিরিক্ত স্পিরিট পানে যুবকের মৃত্যু হলেও ওই এলাকায় হোমিও চিকিৎসার আঁড়ালে চলছে মাদক ব্যবসা।

 

এছাড়াও ফেন্সিডিল, গাঁজাসহ অন্যান্য মাদকের প্রকোপ ওই এলাকায় বেশী বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মচমইল বাজারের জনৈক ব্যবসায়ী জানিয়েছেন। এছাড়াও বীরকুৎসা বাজার, তালঘরিয়া পলিথিন বাজারের সড়কুতিয়া রোড, গাঁজা ব্যবসা ও সেবন এখন ওপেন সিক্রেট। ফলে হতাশাগ্রস্থ বেকার যুবকরা বেশী ঝুঁকছে মাদকের গহীন অরণ্যে। আর এসব যুবকই নানা নিষিদ্ধ ঘোষিত পার্টির সৃষ্টি করতে পারে এমন আশংকা এলাকাবাসীর। তবে অচিরেই মাদকের করাল গ্রাস থেকে বাগমারা মুক্ত করতে প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন উপজেলাবাসী।

 

এই বিভাগের আরো খবর