ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২,   আষাঢ় ১১ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
পদ্মায় স্বপ্নপূরণের ক্ষণগণনা
১৮দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
০৬মিনিট
:
১০সেকেন্ড
সর্বশেষ:
সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানালেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর মধ্য দিয়ে দেশ নতুন যুগে প্রবেশ করেছে: শিক্ষামন্ত্রী মাথা নোয়াইনি, কখনো নোয়াবো না: প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থলে লাখো মানুষের ঢল দেশে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৩ পদ্মা সেতুতে টোল দিলেন প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করা হলো স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই, বললেন প্রধানমন্ত্রী

ঢাবিতে ছাত্রলীগ কর্মীর থাপ্পড়ে কানে না শোনার অভিযোগ শিক্ষার্থীর

প্রতিদিনের চিত্র বিডি ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৫ মে ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মাস্টারদা সূর্যসেন হলে সালাম না দেয়ায় এক জুনিয়রকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে হল ছাত্রলীগের এক কর্মীর বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার (২৪ মে) রাত ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর নাম সাজ্জাদুল হক সাঈদী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। এ প্রসঙ্গে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী হল প্রাধ্যক্ষ বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

 

ছাত্রলীগ কর্মীর নাম মানিকুর রহমান মানিক। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। মানিক হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সিয়াম রহমানের ঘনিষ্ঠ বলে জানা গেছে। সিয়াম রহমান বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনের অনুসারী।
 
 

অভিযোগপত্রে সাজ্জাদ লিখেছেন, ‘আমি হলের ২৪৯ নম্বর রুমে অনলাইন ক্লাস করার সময় ২০১৭-১৮ সেশনের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র মানিকুর রহমান মানিক আমার রুমে এসে বাবা-মা নিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। পরে তিনি আমাকে তার কাছে যেতে বললে আমি তার কাছে যাই। ঠিক তখনই আকস্মিকভাবে তিনি আমার মুখে এবং কানে চড় মারেন এবং গায়ের সর্বশক্তি দিয়ে আমাকে এলোপাতাড়ি লাথি মারেন। আমি কিছু বুঝে ওঠার আগেই আমাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মারার মাধ্যমে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত ও নির্যাতন করেন। ফলশ্রুতিতে আমি এখন কানে শুনতে পারছি না।’

 

হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সিয়াম মানিককে নিজের অনুসারী বলে দাবি করলেও মারধরের বিষয়টি স্বীকার করেননি। তিনি বলেন, ‘তাদের মাঝে একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে, আমি মিটমাট করে দিয়েছি।’

 

এ বিষয়ে হলের প্রাধ্যক্ষ প্রফেসর মো. মকবুল হোসেন ভূঁইয়াকে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলে পাওয়া যায়নি।

এই বিভাগের আরো খবর