ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২,   আষাঢ় ১১ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
পদ্মায় স্বপ্নপূরণের ক্ষণগণনা
১৮দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
০৬মিনিট
:
১০সেকেন্ড
সর্বশেষ:
সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানালেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর মধ্য দিয়ে দেশ নতুন যুগে প্রবেশ করেছে: শিক্ষামন্ত্রী মাথা নোয়াইনি, কখনো নোয়াবো না: প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থলে লাখো মানুষের ঢল দেশে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৩ পদ্মা সেতুতে টোল দিলেন প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করা হলো স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই, বললেন প্রধানমন্ত্রী

আমাদের দেশটা পঙ্গু হয়ে গেছে- ওবামা

সংবাদ বিশ্ব ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৫ মে ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, “দেশজুড়ে বাবা-মায়েরা তাদের বাচ্চাদের বিছানায় শুইয়ে দেন, গল্প শোনান, গান শোনান- কিন্তু তাদের মনের মধ্যে চিন্তা, আগামীকাল তাদের বাচ্চাদের স্কুলে দিয়ে আসার পর, কিংবা কোনও মুদি দোকান বা খোলা জায়গায় নিয়ে যাওয়ার পর, তাদের সঙ্গে কী ঘটবে তা নিয়ে চিন্তায় থাকেন তারা।”

 

মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের উভালদে শহরের রব এলিমেন্টারি স্কুলে বন্দুকধারীর হামলার পর এসব কথা বলেন ওবামা। এ ঘটনায় রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এক শিক্ষকসহ ১৮ জন নিহতের খবর পাওয়া গেছে।

 

এ সময় নিহতদের পরিবারের প্রতি তিনি ও তার স্ত্রী মিশেলের পক্ষ থেকে “শোক” জানান ওবামা।

 

সাবেক এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, “স্যান্ডি হুকের প্রায় দশ বছর পর- এবং বাফেলোর দশ দিন পর- আমাদের দেশটি পঙ্গু হয়ে গেছে, ভয়ে নয়, কিন্তু একটি বন্দুক লবি এবং একটি রাজনৈতিক দল যারা এই ট্র্যাজেডিগুলো প্রতিরোধ করতে সাহায্য করতে পারে, কিন্তু তারা এতে কোনও আগ্রহই দেখায় না।”

 

ওবামা বলেন, “পদক্ষেপ, যেকোনও ধরনের পদক্ষেপের জন্য ইতোমধ্যে দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেছে।”

 

২০১৫ সালে, যখন তিনি ক্ষমতা ছেড়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, ডেমোক্রেটিক এই প্রেসিডেন্ট গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, নতুন বন্দুক আইন সংস্কার করতে ব্যর্থ হয়েছে তার প্রশাসন। রাষ্ট্রপতি হিসেবে এটি ছিল তার সবচেয়ে বড় হতাশা।

 

তিনি আর বলেছিলেন, “আমাদের জন্য এই সমস্যা সমাধান করতে না পারাটা ছিল কিছুটা দুঃখজনক।”

 

 

সূত্র: বিবিসি

এই বিভাগের আরো খবর