ঢাকা, বুধবার   ১০ আগস্ট ২০২২,   শ্রাবণ ২৬ ১৪২৯

ব্রেকিং:
চট্টগ্রাম, গাজীপুর, কক্সবাজার, নারায়ানগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ ব্যুরো / জেলা প্রতিনিধি`র জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা- স্নাতক, অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল যোগ্য। দৈনিক প্রতিদিনের চিত্র পত্রিকার `প্রিন্ট এবং অনলাইন পোর্টাল`-এ প্রতিনিধি নিয়োগ পেতে অথবা `যেকোন বিষয়ে` আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের এবং প্রতিনিধিদের অনুরোধ করা হল।
সর্বশেষ:
বিশ্বকাপের জন্য আকর্ষণীয় জার্সি উন্মোচন ব্রাজিলের চার বছর পর মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানো শুরু আত্মঘাতী হামলায় পাকিস্তানের ৪ সেনা নিহত গাজায় অস্ত্রবিরতিতে জাতিসংঘের প্রশংসা আশুরার শোক মিছিলে নাইজেরিয়ার সেনাদের হামলা; বহু হতাহত ইসরাইলি দখলদারিত্ব শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের সংগ্রাম চলবে: হামাস ট্রাম্পের বাড়িতে এফবিআইয়ের অভিযান

রামগড়ে মাদক বিরোধী কর্মশালা অনুষ্ঠিত

রতন বৈষ্ণব ত্রিপুরা, রামগড় (খাগড়াছড়ি)

প্রকাশিত: ২২ জুন ২০২২  

ছবি- প্রতিদিনেরচিত্র বিডি।

ছবি- প্রতিদিনেরচিত্র বিডি।

 

"মাদক নয়, মৃত্যু নয়, মাদক মুক্ত জীবন চাই" এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে রামগড় উপজেলায় মাদক দ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার লক্ষ্যে সমন্বিত কর্ম পরিকল্পনা প্রণয়নে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর খাগড়াছড়ি জেলা কার্যালয়ের সহযোগীতায় রামগড় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে মাদক বিরোধী কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

 

বুধবার (২২-জুন) সকাল ১০ টার সময় উপজেলা পরিষদ হলরুমে মাদকের ক্ষতিকর দিক ও মাদক নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে গ্রুপ ভিক্তিক আলোচনা করা হয়েছে৷

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার খোন্দকার মো. ইখতিয়ার উদ্দীন আরাফাত এর সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন, খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো: আলীম উল্যাহ।

 

কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ কুমার কার্বারী, পৌর মেয়র রফিকুল আলম কামাল, জেলা মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আবদুল হালিম রাজ, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান  হাসিনা আক্তার, অফিসার ইনচার্জ  মো. সামসুজ্জামান সহ  সকল ইউ'পি পরিষদ চেয়ারম্যানগণ, উপজেলা পর্যায়ে বিভিন্ন দপ্তরের সরকারী-বেসরকারী কর্মকর্তা, মসজিদের ইমাম, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, গণমাধ্যম কর্মীসহ এনজিও প্রতিনিধিগণ।

 

অতিথিদের বক্তব্য বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর প্রথমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সর্ব প্রথম মাদকের বিরুদ্ধে প্রদক্ষেপ গ্রহন করেছিলেন। কারন মাদক একটি দেশ ও জাতিকে ধ্বংস করে দেয়। দেশের অর্থসামাজিক উন্নয়নে মাদকের অপব্যবহার বাধার কারন হয়ে দাঁড়ায়। এজন্য বর্তমান সরকার মাদকের বিরুদ্ধে জিরো ট্রলারেন্স নীতি গ্রহন করেছে। আমাদের ছেলে-মেয়েরা যাতে করে মাদকের স্পর্শে না আসতে পারে এজন্য পরিবার থেকে মাদক বিরোধী সচেতনতা গড়ে তুলতে পারলে মাদকের আগ্রাসন থেকে আমরা দেশকে রক্ষা করতে পারবো।

 

বক্তাগন আরো বলেন, মাদকের ব্যাপারে সকলকে সচেতন হতে হবে। পাশাপাশি যারাই মাদকের সঙ্গে জড়িত থাকবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। মাদকের বিষয়ে আমাদের ধারাবাহিক অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এই বিভাগের আরো খবর